আপডেট : ৪ অক্টোবর, ২০১৬ ২০:১৫

নেত্রী শত্রু-মিত্র চিনছেন কি না, সন্দেহ গয়েশ্বরের

বিডিটাইমস ডেস্ক
নেত্রী শত্রু-মিত্র চিনছেন কি না, সন্দেহ গয়েশ্বরের

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া এখনো তাঁর পাশে প্রকৃত শত্রু-মিত্রদের চিনতে পারছেন কি না, তা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। তিনি বলেন, বিপদে না পড়া পর্যন্ত মানুষ চেনা যায় না। আবার অনেক মানুষ আছে, বিপদে পড়লেও মানুষ চিনতে পারে না।

মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে প্রয়াত বিএনপির নেতা আ স ম হান্নান শাহর শোকসভায় গয়েশ্বর চন্দ্র রায় ওই সন্দেহ প্রকাশ করে এ কথা বলেন।

এক-এগারোর সময়ে বিএনপির দুঃসময়ে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য হান্নান শাহর ভূমিকার স্মৃতিচারণা করেন গয়েশ্বর। তিনি বলেন, এক-এগারো খালেদা জিয়ার জীবনে একটা অভিজ্ঞতা সঞ্চয়ের সময়। এক-এগারো না এলে তিনি বুঝতে পারতেন না কে তাঁর প্রকৃত বন্ধ, কে শত্রু। রাজনীতিতে তাঁর সঙ্গে শেষ সময় পর্যন্ত কে হাঁটবে, কে হাঁটবে না।

গয়েশ্বর রায় বলেন, ‘এখনো আমার কাছে হান্নান শাহর মতো সন্দেহ হয়, আদৌ কি আমাদের নেত্রী এখনো আসল-নকল চিনতে পারছেন? তাঁর সঙ্গে যাঁরা চলেন, তাঁরা সবাই সঠিক? তাঁর পাশে যাঁরা আছেন, তাঁরা নাকি আবার আরেকটা ওয়ান-ইলেভেনের জন্য অপেক্ষা করছেন।’

গয়েশ্বর যোগ করেন, ‘বিপদে না পড়া পর্যন্ত মানুষ চেনা যায় না। আবার অনেক মানুষ আছে, বিপদে পড়লেও মানুষ চিনতে পারে না। তিনি যদি বেগম খালেদা জিয়া হন, তাহলে আমাদের দুর্ভোগ আরও কঠিন হবে। আর যদি বিপদে পড়ার মধ্য দিয়ে তিনি হান্নান শাহর মতো সঠিক মানুষ চিনতে পারেন, তাহলে আমি বলব এই দুর্ভোগের মেয়াদ বেশি দিন নয়।’

বিএনপির এই নেতা বলেন, এক-এগারোর সরকার চলে গেলেও এখনো সে ষড়যন্ত্র অব্যাহত আছে। তিনি বলেন, মইন উদ্দিন-ফখরুদ্দীনরা চলে গেলেও এক-এগারোর ষড়যন্ত্র যায়নি। এর বাস্তবায়ন আরও নিশ্চিতভাবে চলছে, সেই ষড়যন্ত্র পাকাপোক্ত করা এবং সেটা বাস্তবায়নের দায়িত্ব পড়েছে বর্তমান সরকারের প্রধান শেখ হাসিনার ওপর।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আরকে

উপরে