‘সব বলবো, ক্রসফায়ারে দেবেন না’

ক্যাসিনোকাণ্ডে আলোচিত ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সভাপতি ইসমাইল চৌধুরী সম্রাটকের অবশেষে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়েছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ন (র‌্যাব)। রোববার (০৬ অক্টোবর) ভোর পাঁচটার দিকে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের আলকরা ইউনিয়নের কুঞ্জশ্রীপুর গ্রাম থেকে এক সহযোগীসহ সম্রাটকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ক্যাসিনোবিরোধী অভিযান শুরুর পর থেকে সম্রাট আশংকা করছিলেন যে তাকে ক্রসফায়ার দেওয়া হবে। মূলত এজন্যই তিনি আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে দফায় দফায় দেন দরবার করছিলেন। তাকে ক্রসফায়ার দেওয়া হবে না, গ্রেপ্তারের আগে এ ব্যাপারে নিশ্চিত হতে চেয়েছিলেন।

সম্রাটের স্ত্রী ও তার ঘনিষ্ঠরা জানিয়েছেন যে, ক্রসফায়ারের আশংকা থেকেই সম্রাট আইনপ্রয়োগকারী সংস্থার কাছে আত্মসমর্পন করা থেকে নিজেকে বিরত রেখেছিলেন। তবে আইনপ্রয়োগকারী সংস্থা বলছে যে, আত্মসমর্পন না করলেও সম্রাট একধরণের বন্দি হয়েই ছিলেন তাদের কাছে। ২০ সেপ্টেম্বর থেকে সম্রাট আইনপ্রয়োগকারী সংস্থার সঙ্গে দফায় দফায় যোগাযোগ করেছেন। তাদের কাছে সম্রাটের একটাই অনুরোধ ছিল যে, তাকে যেন ক্রসফায়ারে না দেওয়া হয়।

সম্রাটকে বিভিন্ন মহল থেকে বলা হয়েছিল আইনপ্রয়োগকারী সংস্থা তাকে ক্রসফায়ারে দিতে পারে। সে জন্য ক্রসফায়ার থেকে বাঁচার জন্যই বারবার চেষ্টা করেছেন সম্রাট, শেষ পর্যন্ত তিনি গ্রেপ্তার হয়েছেন।

আইনপ্রয়োগকারী সংস্থার সূত্রে জানা গেছে যে, ক্যাসিনো বাণিজ্যসহ বিভিন্ন অপকর্ম সম্পর্কে সরকারকে সব ধরণের সহযোগিতা করবেন বলে জানিয়েছেন সম্রাট। এর বদলে একটাই অনুরোধ রেখেছেন, তাকে যেন ক্রসফায়ারে দেওয়া না হয়।

প্রসঙ্গত, আলোচিত যুবলীগ নেতা ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট ঢাকার জুয়াড়িদের কাছে ‘ক্যাসিনো সম্রাট’ নামেই পরিচিত। জুয়া খেলাই তার পেশা ও নেশা। প্রতিমাসে দেশের বাইরেও যান জুয়া খেলতে।

সম্প্রতি রাজধানীতে ক্যাসিনো বিরোধী অভিযানে র্যাবের হাতে গ্রেপ্তার হন সম্রাটের ডানহাত হিসেবে পরিচিত যুবলীগ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ ভূঁইয়া। এরপর ধরা পড়েন রাজধানীর টেন্ডার মাফিয়া আরেক যুবলীগ নেতা জি কে শামীম। এ দুইজনই অবৈধ আয়ের ভাগ দিতেন সম্রাটকে।তারা গ্রেপ্তার হও্য়ার পর জিজ্ঞাসাবাদে সম্রাটের অবৈধ ক্যাসিনো সাম্রাজ্য নিয়ে চাঞ্চল্যকর তথ্য দেন। এতে করে বেকায়দায় পড়ে যান সম্রাট।

এরপর গা ঢাকা দেন ইসমাইল চৌধুরী সম্রাট। আড়াল থেকেই গ্রেপ্তার এড়াতে নানা তৎপরতা শুরু করেন। তবে প্রধামন্ত্রী শেখ হাসিনার কঠোর অবস্থানের কারণে শেষ রক্ষা হল না যুবলীগের এই প্রভাবশালী নেতার।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

মন্তব্য