আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা হলেন সেই জয়নাল হাজারী

ফেনীর বিতর্কিত সাবেক সংসদ সদস্য জয়নাল হাজারীকে আওয়ামী লীগের জাতীয় উপদেষ্টা পরিষদের সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত করা হয়েছে।

বুধবার (০২ অক্টোবর) রাতে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে এক অনির্ধারিত সভায় শেখ হাসিনা জয়নাল হাজারীকে গুরুত্বপূর্ণ এই পদে নির্বাচিত করেন।

জানা গেছে, শারীরিকভাবে অসুস্থ হওয়ায় সম্প্রতি জয়নাল হাজারীকে চিকিৎসার জন্য ৪০ লাখ টাকা অনুদান দেন প্রধানমন্ত্রী। ওই অনুদানের চেক নিয়ে গ্রহণ করতে হাজারী গতকাল রাতে গণভবনে গেলে প্রধানমন্ত্রী তাঁর স্বাস্থ্যের খোঁজ খবর নেন। তাদের মধ্যে রাজনৈতিক অনেক বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়।

জয়নাল হাজারী ১৯৮৪ সাল থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত প্রায় ২০ বছরের বেশি সময় ধরে ফেনী জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ফেনী-২ (সদর) আসন থেকে তিনি ১৯৮৬, ১৯৯১ এবং ১৯৯৬ সালে তিনবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। এসময় নানা বিতর্কিত কর্মকাণ্ড করে দেশজুড়ে সমালোচিত হন জয়নাল হাজারী। এসময় ‘গডফাদার’ তকমাও লেগে যায় তাঁর গায়ে।

২০০১ সালের ১৭ আগস্ট তৎকালীন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় দেশ ছেড়ে পালিয়ে যান জয়নাল হাজারী। ২০০৪ সালে তাকে আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কার করা হয়। এরপর দীর্ঘদিন রাজনীতিতে নিষ্ক্রিয় ছিলেন দুর্দান্ত প্রতাপশালী এই নেতা।

নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর ২০০৯ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে দেশে ফিরে আসেন তিনি। পাঁচটি মামলায় মোট ৬০ বছরের সাজা হয় জয়নাল হাজারীর। এরপর ওই বছর ২২ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্টে আত্মসমর্পন করলে আট সপ্তাহের জামিন পান হাজারী । পরে ১৫ এপ্রিল নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পন করলে তাকে জেলে পাঠানো হয়। চার মাস কারাভোগের পর ২০০৯ সালের ২ সেপ্টেম্বর মুক্ত হন তিনি।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএ  

মন্তব্য