চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা বাড়ানোর চিন্তা করছে সরকার: এইচটি ইমাম

চাকরিতে প্রবেশের বয়স বৃদ্ধির বিষয়টি সরকার বিবেচনা করছে জানিয়ে আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটির চেয়ারম্যান ও প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম বলেছেন, চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা বাড়ানোর চিন্তায় আছে সরকার, প্রয়োজন হলে বাড়াতে পারে। সে লক্ষ্যে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় বিষয়টি খতিয়ে দেখছে।

সোমবার (৩০ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সিলেটের নজরুল অডিটরিয়ামে গবেষণা সংস্থা সেন্টার ফর রিচার্স অ্যান্ড ইনফরমেশনের (সিআরআই) সহযোগিতায় ‘গৌরবের অভিযাত্রায় ৭০ বছর: তারুণ্যের ভাবনায় আওয়ামী লীগ’ শীর্ষক মতবিনিময় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

এসময় নিয়োগ পরীক্ষায় আলাদা কোন ফি নেওয়া হয় কিনা তরুণদের কাছে জানতে চান প্রধানমন্ত্রীর এই প্রভাবশালী উপদেষ্টা। উপস্থিত তরুণরা ‘হ্যাঁ’ সুচক জবাব দিলে উত্তরে তিনি বলেন, ‘নিয়োগ পরীক্ষায় যাতে আলাদা কোন ফি নেওয়া না হয় সে বিষয়ে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে আলোচনা করা হবে।‘

এইচটি ইমাম বলেন, গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ইশতেহারে চাকরিতে প্রবেশের বয়স বৃদ্ধির কথা বলেছিলাম। সেটা আমাদের বিবেচনায় আছে। প্রয়োজন হলে বাড়ানো হতে পারে।

নবীন চাকুরিপ্রার্থীদের তুলনায় পুরাতন প্রার্থীরা পরীক্ষায় বেশি অকৃতকার্য হয় জানিয়ে ইমাম বলেন, ‘অল্প বয়সে যতনা ধারণ ক্ষমতা থাকে, বয়স বাড়লে সেই ক্ষমতা কমে যায়। ফলে চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা বৃদ্ধি চিন্তার বিষয়। আমাদের নির্বাচনী ইশতেহারে যে কথা ছিল সেটা নিয়ে ভাবতে হবে। তরুণ সমাজ আমাদের দেশের সম্পদ তাদের কাজে লাগাতে হবে।‘

পাকিস্তান আমলে চাকরিতেপ্রবেশের বয়সসীমা ছিল ২৫, পরবর্তীতে ২৭ বছর করা হয়, এরপর সেটা বাড়িয়ে ৩০ করা হয় যেটা বর্তমানে রয়েছে।

 ১৯৯০ সাল পর্যন্ত সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ছিল ২৭ বছর। ১৯৯১ সালে তৎকালীন বিএনপি সরকার সেটা বাড়িয়ে ৩০ বছর করে। এরপর ভিভিন্ন সময়ে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হলেও তরুণ সমাজের প্রাণের দাবি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা বৃদ্ধির বিষয়টি আর বিবেচনায় নেওয়া হয়নি। যদিও এ সময়ে চাকরিতে অবসরের বয়সসীমা ২০১১ সালে দুই বছর বাড়িয়ে ৫৯ বছর করা হয়েছে। মুক্তিযোদ্ধা কর্মকর্তাদের অবসরের বয়স এক বছর বাড়িয়ে ৬০ বছর করা হয়েছে।

আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা উপ-কমিটি আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে অন্যন্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রবাসী কল্যাণ ও কর্মসংস্থান বিষয়ক মন্ত্রী ইমরান আহমেদ, বেসামরিক বিমান ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী, শেখ তন্ময় এমপি, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমেদ হোসেন, মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, সিলে মহানগ আওয়ামী লীগের সভাপতি বদর উদ্দিন আহমেদ কামরান, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী ও মহানগরের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমেদ।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

4 thoughts on “চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা বাড়ানোর চিন্তা করছে সরকার: এইচটি ইমাম

  1. বেরসিক কথক

    - Edit

    Reply

    বালের কথা প্রতিদিন শুনি। এখন আর বিশ্বাস হয়না

মন্তব্য