যে ৩ পদ্ধতিতে পাবেন সৌদি আরবের ভ্রমণ ভিসা

প্রথমবারের মতো বিদেশীদের ভ্রমণ ভিসা দেওয়ার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়েছে সৌদি আরব। ফলে অন্যান্য দেশের মতো সৌদি আরবেও পর্যটকরা ভ্রমণ করতে পারবেন। তেল নির্ভরতা কমিয়ে পর্যটন খাতকে অর্থনীতির নতুন চালিকাশক্তি করার উদ্যোগ নিয়ে এগুচ্ছে দেশটি।

২৮ সেপ্টেম্বর থেকে পর্যটকরা সৌদি আরব ভ্রমণের যেতে পর্যটন ভিসার জন্য আবেদন করতে পারবেন বলে দেশটির পর্যটন মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

সৌদি আরবের পর্যটন মন্ত্রণালয়ের প্রধান আহমেদ আল-খতিব জানিয়েছেন, প্রাতমিক পর্যায়ে ৪৯টি দেশের নাগরিকরা সৌদি আরবে ভ্রমণ ভিসার আবেদন করতে পারবেন।

তিনি বলেন, আমাদের রয়েছে ইউনিসকোর পাঁচটি বিশ্ব ঐতিহ্য (ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট), আকর্ষণীয় সংষ্কৃতি ও মনোরম প্রাকৃতিক সৌন্দর্য। প্রাকৃতিক ও ঐতিহ্যবাহী স্থাপনাগুলো দেখে দর্শণার্থীরা মুগ্ধ হবেন। বিভিন্ন দেশের পর্যটকদের জন্য সৌদি আরবেন দ্বার উন্মুক্ত হওয়া আমাদের জন্য ঐতিহাসিক মুহূর্ত।

নতুন চালু করা এই টুরিস্ট ভিসার মেয়াদ থাকবে এক বছর। এ সময়ের মধ্যে পর্যটকরা সৌদি আরবের প্রতিটি প্রদেশে সর্বোচ্চ ৯০ দিন থাকতে পারবেন। এক বছরের মধ্যে এ ভিসায় সর্বমোট ১৪০ দিন সৌদি আরবে অবস্থান করা যাবে। এর বেশি থাকার অনুমতি দেওয়া হবে না।

ঘোষিত নীতিমালা অনুযায়ী পর্যটকরা ৩টি উপায়ে সৌদি আরবের পর্যটন ভিসা পাবেন__

১) ওয়েবসাইটের মাধ্যমে অনলাইন নিবন্ধন করে।

২) সীমান্ত ক্রস করার সময়ও ভিসা নিতে পারবেন। বিমানবন্দরগুলিতে ভিসা প্রাপ্তির সুযোগ সুবিধা দেওয়া হবে।

৩) অনুমোদিত দেশগুলিতে অবস্থিত সৌদি দূতাবাস ও কনস্যুলেটের প্রতিনিধিদের মাধ্যমেও ভিসা সংগ্রহ করতে পারবেন।

সৌদি যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের উচ্চাভিলাষী পরিকল্পনা ‘ভিশন-২০৩০’ নামক সংস্কার কর্মসূচির অন্যতম কেন্দ্রবিন্দু পর্যটন শিল্পের প্রসার। সে মতো সৌদি আরব সরকার প্রথমবারের মতো পর্যটন ভিসা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

মন্তব্য