৩০ জানুয়ারির নির্বাচন পেছানোর দাবিতে শাহবাগ অবরোধ

ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন পেছানোর দাবিতে শাহবাগ অবরোধ করে রেখেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। ৩০ জানুয়ারি হিন্দু সম্প্রদায়ের সরস্বতী পূজা থাকায় ভোট পেছানোর দাবিতে মাঠে নেমেছেন তাঁরা। এর আগে নির্বাচন পেছানোর দাবিতে আদালতে রিট করা হলে সেটা সরাসরি খারিজ হয়ে যায়।

আজ মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি ) বিকাল সাড়ে চারটা থেকে শাহবাগে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করেছেন আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। তাদের অবস্থানের কারণে একপর্যায়ে রাজধানীর গুরুত্বপূর্ণ এই এলাকায় যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

৩০ জানুয়ারি ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন, একই দিনে হিন্দুদের সরস্বতী পূজা থাকায় নির্বাচন পেছানোর দাবি করছেন হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষ। সরস্বতী পূজার দিনে নির্বাচন সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের অধিকার খর্ব করবে বলে দাবি তাদের।

এরআগে সরস্বতী পূজার দিনে নির্বাচন পেছানোর দাবিতে হাইকোর্টে রিট করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অশোক কুমার ঘোষ। শুনানি নিয়ে রিটটি সরাসরি খারিজ করে দেন বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মোঃ খায়রুল আলমের দ্বৈত বেঞ্চ। আদালত বলেন, ঢাকা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন এখন যে পর্যায়ে রয়েছে সেখান থেকে নির্বাচন পেছানোর কোন সুযোগ নেই। তাই নির্বাচন পেছানোর যে রিট করা হয়েছে সেটা খারিজ করা হলো।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হল সংসদ দুপুরে নির্বাচন পেছানোর দাবিতে মিছিল করেছে। এরপর রিট খারিজের খবর আসলে তারা বিক্ষুব্ধ হয়ে পড়ে, পরে শাহবাগ অবরোধ করে বিক্ষোভ শুরু করেছে শিক্ষার্থীরা। তারা বলছেন ৩০ জানুয়ারি হিন্দু সম্প্রদায়ের ধর্মীয় উৎসবের দিনে নির্বাচন হলে সেটা বাংলাদেশের জন্য একটা বাজে উদাহরণ হয়ে থাকবে।

তাঁরা স্লোগান দিচ্ছেন, ৩০ জানুয়ারি নির্বাচন মানি না মানবো না। পূজার দিনে নির্বাচন বন্ধ করো, করতে হবে। আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা বলেন, নির্বাচন কমিশনের মতো একটা দায়িত্বশীল প্রতিষ্ঠানের এটা করা ঠিক হয়নি। নির্বাচন পেছানোর ঘোষণা না আসা পর্যন্ত তাঁরা শাহবাগ অবরোধ করে রাখবেন বলে জানিয়েছেন।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

মন্তব্য