মাশরাফির হাতে ১৪ সেলাই; বিপিএল শেষ, সঙ্গে ক্যারিয়ারটাও?

খুলনা টাইগার্সের ওপেনার রাইলি রুশোর সজোরে হাঁকানো ক্যাচটা কাভারে ঝাঁপিয়ে তালুবন্দী করতে চেয়েছিলেন ঢাকা প্লাটুনের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা। ক্যাচটা হাতে জমাতে পারেননি, কিন্তু বড় ক্ষতি হয়ে গেছে মাশরাফির।

ফাটা হা্ত নিয়ে তখনই মাঠ ছেড়ে বেরিয়ে যেতে হয়েছে মাশরাফিকে। ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে দলের টপঅর্ডার ব্যাটসম্যান এনামুল হক বিজয় জানালেন, ‘ভাইয়ের হাতে ১০টার বেশি সেলাই পড়েছে। অনেকখানি কেটে গেছে। বাঁ হাতের তালুতে লেগেছে।’

পরে জানা গেল, ১০টি নয়, মাশরাফির হাতে আসলে সেলাই দিতে হয়েছে ১৪টা। এত বড় চোটে বিপিএল থেকেই ছিটকে পড়লেন ঢাকা প্লাটুনের এই অধিনায়ক। এবারের বিপিএলে তাঁর আর মাঠে নামা হবে না।

এদিকে মাশরাফির হঠাৎ এমন বড় ইনজুরিতে বেশ চিন্তিত টাইগার সমর্থকেরা। আগামী মাসেই বাংলাদেশ সফরে আসছে জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট দল। ওই সিরিজ দিয়েই ক্রিকেটকে বিদায় জানাবেন মাশরাফি এমন গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। যদিও বিসিবির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, অবসরের সিদ্ধান্ত মাশরাফি নিজেই নেবেন।

এবারের বাংলাদেশ সফরে ১টি টেস্ট ও ৫টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলার কথা ছিল জিম্বাবুয়ে দলের। তবে মাশরাফির জন্য সিরিজে দু্টি ওয়ানডে রাখার পরিকল্পনা করছে বিসিবি। হঠাৎ এমন আয়োজনে আলোচনায় চলে এসেছে মাশরাফির অবসর। প্রশ্ন উঠছে এই সিরিজ দিয়েই কি তবে আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের ইতি টানছেন বাংলাদেশ দলের সর্বকালের সেরা এই অধিনায়ক?

গত বছরের মে মাসে ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপে সর্বশেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন মাশরাফি। এরপর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজে দলে থাকলেও শেষ মুহূর্তে ইনজুরির কারণে সিরিজ থেকে ছিটকে যান নড়াইল এক্সপ্রেস।

অবশ্য ইংল্যন্ড বিশ্বকাপ খেলেই অবসর নেওয়ার কথা ছিল মাশরাফির। কিন্তু বিসিবি সভাপতি পাপন সে সময় বলেন, ‘দেশের মাটিতেই অবসর নেবেন বাংলাদেশের সর্বকালের সেরা অধিনায়ক। প্রয়োজন হলে তার জন্য বিশেষ ওয়ানডে সিরিজের আয়োজন করা হবে।’ আসন্ন জিম্বাবুয়ে সিরিজকে সেই বিশেষ সিরিজ বলেই ধারণা করা হচ্ছে।

তবে মাশরাফির অবসর নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে এখনও কিছু জানায়নি বিসিবি। মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনূস বলেন, ‘মাশরাফির অবসর নিয়ে আমরা কোন সিদ্ধান্ত নিতে পারি না। এমন সিদ্ধান্ত তার নিজেরই নেয়া উচিত। আর আমাদের কাছ থেকে জাঁকজমকপূর্ণ বিদায় ওর প্রাপ্য। আমরা সেটাই করবো।’

ইতোমধ্যে টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি থেকে অবসর নিয়েছেন মাশরাফি। বাকি আছে শুধু ওয়ানডে। ২০০৯ সালে সর্বশেষ টেস্ট খেলেন মাশরাফি। টি-টোয়েন্টি থেকে অবসর নিয়েছেন ২০১৭ সালে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

মন্তব্য