লাদাখে ভারতীয় সেনাবাহিনীকে আটকে দিল চীন, দিনভর সংঘর্ষ

লাদাখের বিতর্কিত অঞ্চলে টহল দেওয়ার সময় ভারতীয় সেনাবাহিনীকে আটকে দিয়েছে চীনা সেনাবাহিনী। এ নিয়ে দিনভর ভারতীয় ও চীনা সেনাবাহিনীর মধ্যে সংঘাত-হাতাহাতি হয়েছে বলে দিল্লির সামরিক সূত্রগুলো নিশ্চিত করেছে। পরে দুই দেশের প্রতিনিধিদের মধ্যে আলোচনায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।

গত মাসের ৫ তারিখে ভারত সরকার লাদাখকে একটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে ঘোষণার পর এই প্রথম দুই দেশের সেনাবাহিনী মুখোমুখি সংঘাতে জড়ালো।

বুধবার লাদাখের প্যাংগং হ্রদের তীরে ভারতীয় সেনাবাহির টহল দেওয়ার সময় এই ঘটনা ঘটে। ভারতীয় সেনাবাহিনীর বরাতে কলকাতার প্রভাবশালী গণমাধ্যম আনন্দবাজার জানিয়েছে, লাদাখের প্যাংগং হ্রদের উত্তর দিকে বুধবার সকালে টহল দিচ্ছিল ভারতীয় সেনারা। ওই সময় তাদের রাস্তা আটকে দাঁড়ায় চীনা সেনাবাহিনী। দু’পক্ষের মধ্যে উত্তেজনাপূর্ণ বাক্য বিনিময় হয়। দিনের প্রায় সবটুকু সময় এভাবে পরিস্থিতি উত্তপ্ত থাকে। পরে সন্ধার দিকে দুই দেশের প্রতিনিধিরা আলোচনায় বসলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।

গণমাধ্যমটির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, তিব্বত থেকে লাদাখ পর্যন্ত বিস্তৃত লেকটির দুই-তৃতীয়াংশ চীনের নিয়ন্ত্রণে। এ অঞ্চলে আগেও একাধিকবার ভারত-চীন সেনাবাহিনীর মধ্যে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছিল। গত বছর নরেন্দ্র মোদি-শি জিনপিং ওয়াহান বৈঠকের আগে অন্তত ২৮ বার চীনা সেনাবাহিনী নিয়ন্ত্রণ রেখা পেরিয়ে ভারতীয় ভূখন্ডে ঢুকে পড়ে।

এর আগে ২০১৭ সালে এ অঞ্চলেই ভারত-চীন সেনাবাহিনীর মুখোমুখি হওয়ার একটা ভিডিও ভাইরাল হয়েছিল। এতে দেখা গেছে , দুই দেশেরই সেনা সদস্যরা একে অপরের দিকে পাথর ছুড়ছে। পরবর্তী সময়ে তারা মারামারিতে লিপ্ত হয়।

জম্মু-কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বাতিলের পর ভারত-চীনের মধ্যে নতুন করে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়েছে। জম্মু-কাশ্মীরকে কেন্দ্র শাসিত অঞ্চল ঘোষণা করার পর দিনই এর বিরোধিতা করে চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয় কড়া বার্তা দিয়েছিল। তারপর থেকে এর বিরোধিতা করার জন্য পাকিস্তানকেও সমর্থন দেয় চীন।

আজকের পরিস্থিতি নিয়ে ভারতীয় সেনাবাহিনীর একটি সূত্রের বরাতে ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দুই দেশের প্রতিনিধিদের মধ্যে আলোচনার পর উত্তেজনা পুরোপুরি বন্ধ হয়েছে। প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা (এলএসি) নিয়ে বিভ্রান্ত হওয়ার কারণে এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।

উল্লেখ্য, ১৯৪৭ সালে দেশ ভাগের পর থেকে চীন লাদাখকে তাদের এলাকা দাবি করে আসছে। এ নিয়ে দেশ দুটির মধ্যে তখন থেকেই উত্তেজনা চলে আসছে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম   

মন্তব্য