ওয়ানডে ক্রিকেটে যত ডবল সেঞ্চুরি, রোহিতের ৩!

ক্রিকেট বিশ্ব ওয়ানডেতে প্রথম ডবল সেঞ্চুরি দেখেছিল ভারতীয় কিংবদন্তী মচীন টেন্ডুলকারের ব্যাটে। গোয়ালিয়রের রুপ সিং সে্টেডিয়ামে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ডবল সেঞ্চুরি করে ইতিহাসের প্রথম ডবল সেঞ্চুরিয়ান হিসেবে নাম লেখান ক্রিকেট ঈশ্বর। দিনটি ছিল ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১০ সাল। এরপর থেকে প্রায় প্রতি বছরই কোনো না কোনো ব্যাটসম্যান ডাবল সেঞ্চুরি করে এই তালিকা লম্বা করেই চলছেন। আজকের আলোচনায় পাঠকদের জানাবো ওয়ানডে ক্রিকেটের সবগুলো ডাবল সেঞ্চুরির গল্প__

১) রোহিত শর্মা (২৬৪ রান)

ওয়ানডে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ ব্যক্তিগত রানের মালিক ভারতের হার্ডহিটার ব্যাটসম্যান রোহিত শর্মা। তিনি একাই করেছেন তিন তিনটি ডবল সেঞ্চুরি! ২০১৪ সালে কলকাতায় শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ১৭৩ বল মোকাবেলা করে ২৬৪ রানের অনবদ্য এক ইনিংস খেলেন রোহিত শর্মা। যা এখন পর্যন্ত ওয়ানডে ক্রিকেট ইতিহাসে একজন ব্যাটসম্যানের সর্বোচ্চ সংগ্রহ। সেই ম্যাচে রোহিত শর্মা রেকর্ড পরিমাণ বাউন্ডারি ৩৩টি চার ও ৯টি ছক্কা হাঁকিয়েছিলেন।

২) মার্টিন গাপটিল (২৩৭ রান)

নিউজিল্যান্ড দলের অন্যতম সেরা উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান মার্টিন গাপটিল। নিউজিল্যান্ডের হয়ে প্রথম ও বিশ্ব ক্রিকেটের পঞ্চম ব্যাটসম্যান হিসেবে দুইশত রান পূর্ণ করার রেকর্ড গড়েন তিনি। ২০১৫ সালের আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপে ক্রিস গেইলের দুইশত রান করার দুই সপ্তাহ পরেই সেই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষেই মার্টিন গাপটিল এ মাইলফলক স্পর্শ করেন। ১৬৩ বলে ২৪টি চার ও ১১টি ছয়ের সুবাদে ২৩৭ রান সংগ্রহ করেন তিনি। যা এখন পর্যন্ত ওয়ানডে ক্রিকেটে এক ইনিংসে একজন ব্যাটসম্যানের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ এবং বিশ্বকাপ ক্রিকেটে সর্বোচ্চ রান।

৩) বীরেন্দ্র শেবাগ (২১৯ রান)

শচীন টেন্ডুলকারের পর তারই সতীর্থ আরেক ভারতীয় কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান বীরেন্দর শেবাগ দ্বিতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে ওয়ানডেতে ডাবল সেঞ্চুরি করেন। ২০১১ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে এই কীর্তি গড়েন শেবাগ। ১৪৯ বল খেলে ২৫টি চার ও ৭টি ছয়ের মাধ্যমে ২১৯ রান করেন তিনি৷ শেবাগের ডাবল সেঞ্চুরির উপর ভর করে নির্ধারিত ৫০ ওভার শেষে ৫ উইকেটে হারিয়ে ৪১৮ রান সংগ্রহ করে ভারত। পাহাড় সমতূল্য লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ২৬৫ রানে অলআউট হলে ১৫৩ রানের বড় জয় পায় ভারত।

৪) ক্রিস গেইল (২১৫ রান)

ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট দলের অন্যতম সেরা ও মারকুটে ব্যাটসম্যান হলেন ক্রিস গেইল। তিনি মাঠে নামা মানেই যেন ‘বাউন্ডারির উপারে বল উড়ে যাওয়া। এমনকি ক্রিকেটের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে ৫০০ ছক্কা হাকানোর রেকর্ডও এই ব্যাটিং দানবের দখলে। ২০১৫ সালের ক্রিকেট বিশ্বকাপে অস্ট্রেলিয়ার ক্যানবেরায় জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে মাঠে নামে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। সেই ম্যাচে ক্রিস গেইল ১৪৭ বলে ১০টি চার ও ১৬টি ছয় মেরে ২১৫ রান সংগ্রহ করেন।

৫) ফখর জামান (২১০ রান)

একমাত্র পাকিনস্তানি ক্রিকেটার হিসেবে ওয়ানডেতে ডবল সেঞ্চুরি করেছেন ফখর জামান। পাকিস্তান ক্রিকেট দলের বর্তমান সময়ের অন্যতম সেরা তরুণ ব্যাটসম্যান ফখর। ২০১৭ সালে ওয়ানডে ক্রিকেটে অভিষেক হয় এই ব্যাটসম্যানের। পরের বছরেই ক্যারিয়ারের ১৭তম ম্যাচে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ১৫৬ বলে খেলে ২৪টি চার ও ৫টি ছয়ের সুবাদে ২১০ রান করে অপরাজিত থাকেন ফখর জামান। তার ডাবল সেঞ্চুরির সুবাদে ৫০ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে ৩৯৯ রান সংগ্রহ করে পাকিস্তান। বিশাল টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে জিম্বাবুয়ে মাত্র ১৫৫ রানে অলআউট হয়। ফলে ২৪৪ রানের বিশাল জয় পায় পাকিস্তান।

৬) রোহিত শর্মা (২০৯ রান)

বর্তমান সময়ে ভারতের অন্যতম সেরা উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান হলেন রোহিত শর্মা। যতই দিন যাচ্ছে তার ব্যাট যেন ততই তুখোড় হয়ে উঠছে। আরেক উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান শিখর ধাওয়ানের সাথে তার জুটিটি যেন ভারতের অন্যতম একটি শক্তিতে রূপ নিয়েছে। তার সাথে জুটি বেঁধেই ২০১৩ সালে ক্রিকেট ইতিহাস ও ভারতের তৃতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে দুইশত রান পূর্ণ করেন রোহিত শর্মা। বেঙ্গালুরুতে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ১৫৮ বলে ১২টি চার ও ১৬টি ছয়ের মাধ্যমে ২০৯ রান করেন তিনি।

৭) রোহিত শর্মা (২০৮ রান)

বিশ্ব ক্রিকেট ইতিহাসে একাধিক বার দুইশত রানের মাইলফলক স্পর্শ করা একমাত্র ব্যাটসম্যান রোহিত শর্মা। তিনবার ডবল সেঞ্চুরি করেছেন তিনি। বর্তমানে আইসিসি ব্যাটিং র‍্যাংকিংয়ে দুই নম্বরে রয়েছেন তিনি। ২০১৩, ২০১৪ সালের পর সর্বশেষ ২০১৭ সালে মোহালিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ডাবল সেঞ্চুরি করেন রোহিত শর্মা। ম্যাচটিতে তিনি ১৫৩ বল খেলে ১৩টি চার ও ১২টি ছয়ের মাধ্যমে ২০৮ রানে অপরাজিত থাকেন। তার ডাবল সেঞ্চুরির উপর ভর করে ৪ উইকেটে ৩৯২ রান সংগ্রহ করে ভারত। জবাবে ৫০ ওভার শেষে ৮ উইকেট হারিয়ে ২৫১ রান করতে সক্ষম হয় শ্রীলঙ্কা। ফলে ১৪১ রানে বিশাল ব্যবধানে জিতে যায় ভারত।

৮) শচীন টেন্ডুলকার (২০০ রান)

ক্রিকেট ইতিহাসের সর্বকালের সেরা ব্যাটসম্যানদের অন্যতম ভারতীয় কিংবদন্তি শচীন টেন্ডুলকার। তাকে ক্রিকেটের ঈশ্বর বলেও সম্বোধন করা হয়। ক্রিকেট ইতিহাসের তিন ফরম্যাট মিলিয়ে শতকের শতক হাঁকানো একমাত্র ব্যাটসম্যান তিনি। ব্যাটিংয়ের শীর্ষ প্রায় সব ধরনের রেকর্ডই যখন তার ঝুলিতে, তখন ডাবল সেঞ্চুরিটি আর বাদ যাবে কেন? ক্যারিয়ারের শেষ সময়ে অর্থাৎ ২০১০ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ইতিহাসের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে ওয়ানডে ক্রিকেটে দুইশত রান পূর্ণ করেন শচীন টেন্ডুলকার। ১৪৭ বল মোকাবেলা করে ২৫টি চার ও ৩টি ছয়ের সুবাদে ২০০ রান করে অপরাজিত থাকেন তিনি।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

মন্তব্য