ফ্রিল্যান্সিংয়ের কাজ কোথায় পাবেন? কিভাবে পাবেন…

বর্তমান সময়ে তরুণদের কাছে সবচাইতে আলোচিত ও আকর্ষনীয় একটি পেশা হচ্ছে ‘ফ্রিল্যান্সিং’। ফ্রিল্যান্সিং হচ্ছে স্বাধীন বা মুক্ত পেশা। অন্যভাবে বলা যায়, কোন নির্দিষ্ট প্রতিষ্ঠানের আধীনে না থেকে স্বাধীনভাবে কাজ করাকে ‘ফ্রিল্যান্সিং’ বলে।

‘ফ্রিল্যান্সিং’ সম্পর্কিত যে প্রশ্নগুলো এখন তরুণ সমাজ সবচেয়ে বেশি জানতে চায় তার মধ্যে অন্যতম হলো, আমি ‘ফ্রিল্যান্সিং’ শিখে কোথায় কাজ পাবো? কিভাবে পাবো? কাজের রেট কেমন হবে?

আজ আমরা ফ্রিল্যান্সিং’ পেশায় যারা নতুন যুক্ত হতে চাচ্ছেন তাদের জন্য বিশেষ আয়োজনে রাখছি ‘ফ্রিল্যান্সিং’ এর কাজ কোথায় কোথায় পাওয়া যায় সে সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা। তো চলুন জেনে নেওয়া যাক কোথায় পাবেন ‘ফ্রিল্যান্সিং’ এর কাজ__

১) UpWork

‘ফ্রিল্যান্সিং’ জগতের সবচেয়ে জনপ্রিয় মার্কেটপ্লেস UpWork। এটি পূর্বে oDesk নামে পরিচিত ছিল। কিছুদিন পূর্বে UpWork এ পরিবর্তন হয়েছে। যুক্ত হয়েছে বেশ কিছু নতুন ফিচার ও সুবিধা। Elance নামের আরেকটি জনপ্রিয় জব মার্কেটও এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে। UpWork ই বর্তমানে ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটের লিডার।

এই ওয়েবসাইটে বায়াররা বিভিন্ন ধরণের জব পোস্ট করে থাকেন, সেখানে ফ্রিল্যান্সাররা তাদের স্কিল অনুযায়ী অ্যাপ্লাই করেন। বায়ররা সব আবেদনকারীদের মধ্য থেকে বাছাই করে ইন্টারভিউ নিয়ে থাকেন, কিছু ক্ষেত্রে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমেও এই কাজ সম্পাদন করা হয়ে থাকে। এরপর বায়ার যাকে তার কাজটির জন্য উপর্যুক্ত মনে করেন তাকেই কাজটি দিয়ে থাকেন।

তবে বেশিরভাগ ক্ষেত্রে বায়াররা UpWork মেসেজে অথবা Skype চ্যাটের মাধ্যমে ইন্টারভিউ নিয়ে থাকেন। এই ওয়েবসাইটের কিছু নতুন এলগরিদমের কারণে এখানে নতুনদের কাজ পাওয়াটা একটু কঠিনই বটে। তবে আপনার অ্যাপলিকেশন কভার লেটার ও পোর্টফোলিও ভালো হলে কাজ পাবেন। এক দুইটি কাজ কোনভাবে করে ফেলতে পারলে আর সমস্যা নেই। তখন একের পর এক কাজ পেতে থাকবেন।ৱ

UpWork এ অ্যাকাউন্ট রেজিস্ট্রেশনের সময় সব তথ্য সঠিক ব্যবহার করুন, কোন ভুল তথ্য দেবেন না। ন্যাশনাল আইডি কার্ডের সঙ্গে মিল রেখে তথ্য দেবেন। নইলে পর্বর্তীতে বড় ধরণের ঝামেলায় পড়বেন। এমনকি অ্যাকাউন্ট বাতিলও হয়ে যেতে পারে।

আর কোনভাবেই একই নামে দুটি অ্যাকাউন্ট খুলবেন না। তাহলে আপনার দুটি অ্যাকাউন্টই লক করে দেওয়া হবে। UpWork এ আর কাজ করতে পারবেন না। UpWork এ দুই ধরণের মেম্বারশীপ রয়েছে, ফ্রি এবং পেইড। ফ্রি মেম্বারশীপ এ আপনি মাসে সর্বোচ্চ ৩০টি জব অ্যাপ্লাই করতে পারবেন। পেইড মেম্বরশীপে এই বাধ্যবাধকতা নেই।ৱ

২) Envato

এটি নতুনদের ফ্রিল্যান্সারদের জন্য সবচেয়ে ভালো মার্কেট প্লেস। এটি প্যাসিভ ইনকামের জন্য উঁকৃষ্ট মার্কেট প্লেস। এই মার্কেট প্লেসে বেশ কয়েকটি প্লাটফর্ম আছে, যেখানে আপনি আপনার তৈরি করা কাজ বিক্রি করতে পারবেন। যা পর্বর্তীতে বায়ার কিানে নিয়ে নিজের মতো করে কাস্টমাইহজ করে ব্যবহার করবে। এখানে প্রথম দৃষ্টিতে প্রোডাক্টের মূল্য কম মনে হতে পারে, কিন্তু এখান থেকেই আপনি কোটিপতি হতে পারেন। উদাহরণ স্বরুপ বলি-এখানে একটি বিজনেস কার্ডের মূল্য ৬ ডলার, কিন্তু এই প্রডাক্ট যখন ১০০ বার বিক্রি হবে তখন কিন্তু সেটার মূল্য দাঁড়াবে ৬০০ ডলার। আপনি পাবেন ৬০০ ডলার।

এমন রিসাইক্লিং রেট অন্য কোন মার্কেটপ্লেসে পাবেন না। এই মার্কেটপ্লেসে আপনি কোন প্রোডাক্ট একবার আপডোল করার পর মার্কেটপ্লেস টিম আপনার প্রোডাক্টটি রিভিউ করবে, বিক্রির জন্য অনুমোদন হলে আর আপনার তেমন কিছু করতে হবে না। যদি না বায়ার সেটা ব্যবহার করতে গিয়ে কোন অসুবিধায় পড়েন।

এই মার্কেটপ্লেসের বেশ কয়েকটি অংশ রয়েছে, কোন অংশে কি প্রোডাক্ট বিক্রি করা যায় তা নতুন ফ্রিল্যান্সারদের সুবিধার জন্য সংক্ষেপে তুলে ধরা হলো–

Graphic River- এখানে ডিজাইন টেমপ্লেট বিক্রয় করতের পারবেন। যেমন: টি-শার্ট, পোস্টকার্ড, ব্রশিউর, বিজনেস কার্ড, ফ্লঅয়ার, লোগো, ব্যাকগ্রাউন্ড, ফন্ট, ফটোশপ ব্রাশ, টেক্স ইফেক্ট ইত্যাদি।

Code Canayan: এখানে ওয়েবওয়ার বিক্রয় করতে পারবেন। যেমন-পিএইচপি স্ত্রিপ্ট, ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন, ই-কমার্স প্লঅগিন ইত্যাদি।

Theme Forest: এখানে HTML ওয়েবসাইট টেমপ্লেট, ওয়ার্ডপ্রেস টেমপ্লেট, জুমলা টেমপ্লেট, ই-কমার্স ওয়েব টেমপ্লেট বিক্রয় করতে পারবেন।

PhotoDone: এখানে আপনি স্টক ফটোগ্রাফ বিক্রয় করতে পারবেন।

3D Ocean: এখানে আপনি 3D মডেল বিক্রয় করতে পারবেন।

Audio Jungle: এখানে আপনি নিজের কম্পোজ করা মিউজিক বিক্রয় করতে পারবেন।

Video Hive: এখানে আপনি আপনার স্টক ভিডিও অথবা মোশনগ্রাফিক্স টেমপ্লেট বিক্রয় করতে পারবেন।

৩) Fiverr

বর্তমানে এই মার্কেটপ্লেসটি বেশ জনপ্রিয়। নতুনদের কাজ পাওয়ার জন্য সেরা মার্কেটপ্লেস এটি। এখানে আপনি কাজ পোস্ট করবেন, কি কি কাজ জানেন তার বিস্তারিত বিবরণ দিবেন। আপনার কাজের একটা স্যাম্পল জব পোস্টের সঙ্গে যুক্ত করে দিতে হবে। বায়ারের কাছে আপনার সার্ভিসটি পছন্দ হলে কিনে নেবে। কাজের মূল্য দেখতে কম মনে হলেও শুরু করার পর আপনি দেখবেন ভিন্ন ছিত্র। এখানে এক একটি জব থেকে ১০ ডলার থেকে শুরু করে ১০০ ডলার বা তারও বেশি পর্যন্ত ইনকাম করতে পারবেন।

৪) 99 Design

এই মার্কেটপ্লেসটি শুধুমাত্র ডিজাইনারদের জন্য। এই ওয়েবসাইটে বায়ার তাদের কাজের বিবরণ লিখে জব পোস্ট করে থাকেন। আগ্রহী ফ্রিল্যান্সার ডিজাইনাররা কাজের বিবরণ অনুযায়ী ডিজাইন করে সাবমিট করে থাকেন। এইটা একটা কম্পিটিশনাল সিস্টেম মার্কেটপ্লেস। বায়ারের কাছে যার কাজ সবচেয়ে ভালো লাগবে, তার ডিজাইন ব্যবহারের জন্য চূড়ান্ত করেন। এবং শুধুমাত্র বিজয়ী ফ্রিল্যন্সারই টাকা পেয়ে থাকেন। এই ওয়েবসাইটে কাজের জন্য উচ্চমূল্য পাওয়া যায়। তবে নতুনদের কাজ শেখার/ প্রাকটিস করার জন্য বেস্ট প্লেস এটা। এখানে অন্যদের কাজ অনুকরণ করে ডিজাইন করবেন, নিজের কাজের দক্ষতা বাড়বে।

৫) Freelancer

এই ওয়েবসাইটটিও বেশ জনপ্রিয় একটি মার্কেটপ্লেস। UpWork এর মতো সকল ধরণের কাজ এখানে পাওয়া যায়। তবে এদের চার্জ অন্যদের চেয়ে বেশি। কাজ পাওয়ার সাথে সাথে এরা্ আপনার অ্যাকাউন্ট থেকে সার্ভিস চার্জ কেটে নেবে। যেখানে অন্যান্য ওয়েবসাইট আপনি টাকা পাওয়ার পর তা থেকে সার্ভিস চার্জ কাটে। এখানে ৮% থেকে ১০% পর্যন্ত সার্ভিস চার্জ কাটা হয়।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

2 thoughts on “ফ্রিল্যান্সিংয়ের কাজ কোথায় পাবেন? কিভাবে পাবেন…

  1. মোঃ সোহাগ হোসেন

    - Edit

    Reply

    আমি শিখতে চাই কিন্তু টাকা নাই চাকরি হচ্ছে না

মন্তব্য