‘বুলবুল’ আতঙ্কে কাঁপছে দক্ষিণাঞ্চল, ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত

অতি প্রবল সুপার সাইক্লোনে রূপ নিয়েছে ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’। শনিবার সন্ধ্যা নাগাদ এটি সুন্দরবনের হিরণ পয়েন্ট দিয়ে বাংলাদেশের ভূখন্ডে প্রবেশ করে তাণ্ডব চালাতে পারে বলে ধারণা করছেন আবহাওয়া অধিদপ্তর। ইতোমধ্যে মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ১০ নম্বর মহাবিপদ সংকেত ও চট্টগ্রাম বন্দরকে ৯ নম্বর বিপদ সংকেত দেখিয়ে যেতে বলেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

সুপার সাইক্লোন ‘বুলবুল’ এর প্রভাবে ৭ ফুট জলোচ্ছ্বাসের সম্ভাবনা রয়েছে। ‘বুলবুল’ ঝুঁকিতে রয়েছে খুলনা, সাতক্ষীরা, বাগেরহাট, পটুয়াখালী, বরগুনা, পিরোজপুর ও ভোলা।

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ শনিবার সকালে মোংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ৩৮০ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে। এটি অতিদ্রুত উপকূলের দিকে এগিয়ে আসছে। ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৭৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ১৫০ কিলোমিটার, যা দমকা ও ঝড়ো হাওয়ার আকারে ১৮০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে।

ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ আতঙ্কে কাঁপছে সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাট, ভোলাসহ উপকূলীয় ১৯ জেলা। অনেকেই ইতোমধ্যে আশ্রয় কেন্দ্রে যেতে শুরু করেছে। সিডর-আইলার মতো এবারের ঘূর্ণিঝড়টিও সুন্দরবনের ওপর দিয়ে অতিক্রম করার প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে। ফলে সাতক্ষীরা, খুলনা ও বাগেরহাট অঞ্চলে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে।

আবহাওয়া অধিদ্প্তর থেকে জানানো হয়েছে, ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ এর কারণে সাগর উত্তাল হয়ে উঠেছে। সময়ের সাথে সাথে আরও তীব্র শক্তিধারণ করছে ঘুর্ণিঝড় ‘বুলবুল’।

আবহাওয়া বিভাগের বিজ্ঞানীরা বলছেন, ‘উপকূলীয় ১৯ জেলার উপর দিয়ে বয়ে যাবে সুপার সাইক্লোন ‘বুলবুল’। এরমধ্যে ১৩ জেলা বেশি ঝুঁকিতে রয়েছে। ঝড়ের সঙ্গে উপকূলীয় অঞ্চলে ৭ ফুট পর্যন্ত জলোচ্ছ্বাসের সম্ভাবনা রয়েছে।

যেসব জেলা অতি ঝুঁকিতে রয়েছে সেগুলো হলো_সাতক্ষীরা, বাগেরহাট, পটুয়াখালী, ভোলা, পিরোজপুর, বরগুনা, নোয়াখালী, ফেনী, লক্ষ্মীপুর, চাঁদপুর, খুলনা, চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার।

আবহাওয়াবিদ আব্দুর রহমান খান জানান, ঘূর্ণিঝড়টি শনিবার সন্ধ্যার পর বাংলাদেশের খুলনার ও বরিশাল অঞ্চলে আঘাত হানতে পারে। এর একটি অংশ ভারতের সুন্দরবন পর্যন্ত বিস্তৃত হতে পারে। তবে উপকূলে আঘাত হানার আগে কিছুটা দূর্বল হয়ে পড়ার সম্ভাবনা আছে।’

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

মন্তব্য