রাতের আঁধারে পালালেন ডিসি কবির, উধাও সেই নারী!

নারী আফিস সহকর্মীর সঙ্গে আপত্তিকর ভিডিও ভাইরাল হওয়ায় বিতর্কের মুখে পড়া জামালপুরের সেই বিতর্কিত জেলা প্রশাসক (ডিসি) আহমেদ কবিরকে ওএসডি করেছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়। তবে জনরোষে পড়ার ভয়ে আদেশ আসার আগেই রাতের আঁধারে পালিয়ে গেছেন ডিসি আহমেদ কবির।

বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থায় শনিবার রাত তিনটায় তিনি জামালপুর ত্যাগ করে ময়মনসিংহ বিভাগীয কমিশনারের কার্যালয়ে আশ্রয় নেন বলে জানা গেছে। খোঁজ নেই সেই নারীরও। প্রশ্ন উঠছে সানজিদা ইয়াসমিন সাধনা নামের ওই নারী নিজে থেকে আত্মগোপন করেছেন নাকি তাকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে সেটা নিয়েও প্রশ্ন তৈরি হয়েছে।

জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের উপ সচিব এবিএম ইফতেখারুল ইসলাম খন্দকার সাক্ষরিত আদেশপত্র জামালপুরে পৌঁছে রোববার দুপুর দেড়টায়। সেই আদেশে আহমেদ কবীরকে জন প্রশাসন মন্ত্রণালয়ের বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা করা হয়েছে। তার স্থলে নতুন জেলা প্রশাসক হিসেবে যোগদান করছেন পরিকল্পনা মন্ত্রীর একান্ত সচিব মোহাম্মদ এনামুল হক।

এদিকে আলোচিত নারী অফিস সহকারী সাধনা রোববার কর্মক্ষেত্রে যোগদানের কথা ছিল, কর্মক্ষেত্রে তিনি অনুপস্থিত রয়েছেন বলে জানিয়েছেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রাজিব কুমার সরকার। সাধনার বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নিয়েছেন কিনা প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশনার অপেক্ষায় রয়েছি। সাধনা এখন কোথায়, সঠিক হদিস বলতে পারছেনা কেউ।

সাধনার পরিবারের সাথে এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে তার মা নাসিমা আক্তার বলেন, মেয়ে বেড়াতে গেছে। কোথায় বেড়াতে গেছে এ বিষয়ে মুখ খুলেননি তিনি।

আহমেদ কবীরের ওএসডির খবর চাউর হলে আজ ডিসি অফিসে গিয়ে তথ্য সংগ্রহের জন্য ভিড় জমায় সাংবাদিকরা। উৎসুক মানুষও এসেছে সর্বশেষ খবর জানতে। বিশেষ নিরাপত্তায় ডিসি অফিস প্রাঙ্গণ ও আশপাশে মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ। সেখানে দমকল বাহিনীর গাড়ীও অবস্থান করছিল। ডিসি অফিসের বারান্দায় বসানো হয়েছিল ভিক্ষুক মুক্ত জামালপুরের প্রচারণায় একটি এলইডি টিভি। সেখানে ডিসি আহমেদ কবীরের বক্তব্য থাকায় হামলার আশংকায় টিভিটি সরিয়ে রাখা হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন অনেকেই।

তবে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রাজিব কুমার সরকার বললেন ভিন্ন কথা। তিনি বলেছেন দু’দিন বন্ধ থাকায় টিভিটি খুলে রাখা হয়েছে। আজ সকালে সেটা যথাস্থানে থাকবার কথা। অথচ দুপুর ২টা পর্যন্ত টিভিটি দেখতে পাওয়া যায়নি।

নারী কেলেঙ্কারিতে অভিযুক্ত ডিসি আহমেদ কবীরের ওএসডি ও বদলীতে সন্তুষ্ট নয় জামালপুরবাসী। তার চাকুরিচ্যুতসহ দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবি তুলেছেন সংক্ষুব্ধরা। সেই সাথে ছায়াডিসি খ্যাত প্রভাবশালী পিয়ন সাধনারও বিচারের দাবি জানিয়েছে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

মন্তব্য