পাকিস্তান দলের অধিনায়কত্ব হারালেন সরফরাজ

সমালোচনার মুখে পাকিস্তানের অধিনায়কত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হলো দীর্ঘ সময় দলটিকে নেতৃত্ব দেওয়া আলোচিত উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান সরফরাজ আহমেদকে।

শুক্রবার (১৮ অক্টোবর) পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) সরফরাজকে টেস্ট ও টি-টোয়েন্টির অধিনায়কত্ব থেকে সরিয়ে দিয়েছে। গত কয়েকদিন ধরেই শোনা যাচ্ছিল, সরফরাজকে অধিনায়কত্ব থেকে সরানো হতে পারে অথবা তিনি নিজেই পদত্যাগ করতে পারেন। তবে টেস্ট ও টি-টোয়েন্টির অধিনায়কত্ব হারালেও ওয়ানডেতে এখনও তিনি পাকিস্তানের নেতৃত্বে আছেন।

সরফরাজ ২০১৬ সালে টি-টোয়েন্টি ও পরবর্তীতে ২০১৭ সালে তিন ফরম্যাটেই পাকিস্তানের অধিনায়ক নির্বাচিত হন। তার অধীনে পাকিস্তান চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জিতেছে। উঠেছে টি-টোয়েন্টি র‍্যাংকিংয়ের শীর্ষে। তবে সম্প্রতি শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টো-টোয়েন্টিতে হোয়াইটওয়াশ ও বিশ্বকাপে পাকিস্তানের লজ্জাজনক পারফরমেন্সের কারণে তাকে সরিয়ে দেওয়ার বিষয়টি সামনে আসে।

দেশটির সাবেক ক্রিকেটারদের অনেকেই সরফরাজকে নেতৃত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়ার দাবি তুলে ছিলেন। পিসিবির অনেক উধ্বতন কর্মকর্তারাও সরফরাজের পক্ষে ছিলেন না। শেষমেশ তাকে নেতৃত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হল।

সরফরাজ শুধু নেতৃত্বই হারাননি, বাদ পড়েছেন দুই ফরম্যাটের দল থেকেও। আসন্ন অস্ট্রেলিয়া সফরে তিনি দলের সঙ্গী হতে পারছেন না। অস্ট্রেলিয়া সফরে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলবে পাকিস্তান। এরপর মাঠে গড়াবে টেস্ট সিরিজ, যা দিয়ে শুরু হবে আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপে পাকিস্তানের যাত্রা।

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে পাকিস্তান দলকে নেতৃত্ব দেবেন বাবর আজম। বাবরকে স্থায়ীভাবে অধিনায়ক ঘোষণা না করা হলেও তিনিই যে পাকিস্তানের টি-টোয়েন্টিতে সরফরাজের উত্তরসূরী সেটা অনেকটাই নিশ্চিত। আগামী বছর টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও দলকে নেতৃত্ব দেবেন বাবর আজম। অপরদিকে টেস্টে পাকিস্তানের নেতৃত্ব দেবেন আজহার আলী।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

মন্তব্য