বিশ্ব রেকর্ড গড়া ১০ বাংলাদেশি ক্রিকেটার

ক্রিকেট মানেই রেকর্ড ভাঙাগড়ার খেলা। কেউ কেউ ব্যক্তিগত নৈপূন্যে সবাইকে ছাড়িয়ে জায়গা করে নিয়েছেন ইতিহাসের পাতায়। স্যার ডন ব্রাডম্যান, শচীন টেন্ডুলকার, রিকি পন্টিং, স্যার ইয়ান বোথাম, স্যার ভিভিয়ান রিচার্ডস, ক্লাইভ লয়েড, ব্রায়ান লারা, শেন ওয়ার্ন, মুত্তিয়া মুরালিধরণ, ইমরান খান, ওয়াসিম আকরাম, হালের বিরাট কোহলি-রেকর্ডের পাতা উল্টালে এমন সব গ্রেটদের নাম সামনে আসবে। এই তালিকায় যে কোন বাংলাদেশির নাম থাকতে পারে সেটা একসময় ছিল অকল্পনীয়। তবে সেই অসম্ভবকে সম্ভব করেছেন বর্তমান প্রজন্মের কিছু তরুণ টাইগার। বিশ্বের সর্বকালের সেরা ১০টি রেকর্ড এখন বাংলাদেশিদের দখলে। আসুন জেনে নেয়া যাক কোন সেই ১০টি বিশ্বরেকর্ড__


১) সোহাগ গাজী
তালিকার প্রথম নামটিই ধুমকেতুর মতো এসে চারদিক আলোকিত করে আবার হারিয়ে যাওয়া ক্রিকেটার সোহাগ গাজীর। টেস্ট ক্রিকেটের ১৩৮ বছরের ইতিহাসে একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে একই টেস্টে সেঞ্চুরি ও হ্যাট্রিক করার অনন্য গৌরবের অধিকারী বরিশালের সন্তান সোহাগ গাজী। ২০১৩ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে চট্টগ্রাম টেস্টে এই কীর্তি গড়েন তিনি।

২) মোহাম্মদ আশরাফুল
২০০১ সালে টেস্ট স্ট্যাটাস পাওয়ার একবছর না ঘুরতেই রেকর্ড বুকে নাম উঠেছিল বাংলাদেশের। শ্রীলঙ্কা সফরে গিয়ে চামিন্ডা ভাস, মুরালিধরণদের মতো গ্রেট বোলারদের তুলোধোনা করে অভিষেকেই শতক তুলে নিয়েছিলেন ১৭ বছরের কিশোর আশরাফুল। সে সময় তিনি ভেঙে দিয়েছিলেন দীর্ঘদিন টিকে থাকা এক রেকর্ড। সবচেয়ে কম বয়সে টেস্ট শতকের কীর্তিতে আশরাফুল পেছনে ফেলেছিলেন পাকিস্তানের কিংবদন্তি মুশতাক মোহাম্মদকে। আশরাফুলের সেই রেকর্ড আজও টিকে আছে।

৩) সাকিব আল হাসান
বিশ্বের একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে একই সময়ে টেস্ট, ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টিতে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার নির্বাচিত হওয়া ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান।

৪) তাইজুল ইসলাম
ওয়ানডে ক্রিকেটের ইতিহাসে অভিষেকেই হ্যাট্রিক করা বিশ্বের একমাত্র ক্রিকেটার তাইজুল ইসলাম। ২০১৪ সালে ঢাকায় জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে পরপর তিন বলে পানিয়াঙ্গারা, নিয়াম্বু ও চাতারাকে আউট করে রেকর্ড বুকে নাম লেখান এই টাইগার। যে রেকর্ড আজও অক্ষত আছে।

৫) মুমিনুল হক
তাকে বলা হয় বাংলাদেশের ব্রাডম্যান। টেস্ট অভিষেকের পর থেকে টানা ১৩ টেস্টে খেলেছেন পঞ্চাশোর্ধ্ব ইনিংস। টেস্ট ক্রিকেটের ১৩৮ বছরের ইতিহাসে যে রেকর্ড আর কারও নেই।

৬) মোস্তাফিজুর রহমান
কাটার মাস্টার মোস্তাফিজ। অভিষেকের পরেই যিনি রহস্য বোলার হিসেবে বিশ্ব ক্রিকেটে তোলপাড় ফেলে দিয়েছিলেন। মোস্তাফিজ বিশ্বের একমাত্র ক্রিকেটার যিনি টেস্ট ও ওয়ানডে অভিষেকেই ম্যান অব দ্য ম্যাচ হয়েছেন। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিজের অভিষেক সিরিজে সবচেয়ে বেশি উইকেট নিয়েছেন।

৭) ইলিয়াস সানি
বিশ্বের প্রথম ও একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে টেস্ট ওটি-টোয়েন্টি অভিষেকে ৫ উইকেট ও ম্যান অব দ্য ম্যাচ হয়েছেন তিনি। এই কৃতিত্ব বিশ্বের আর কোন ক্রিকেটারের নেই।

৮) তাসকিন আহমেদ
ওয়ানডে ক্রিকেটে অভিষেকে সবচেয়ে কম বয়সে ৫ উইকেট শিকারি বোলার তাসকিন। অভিষেকে ৫ উ্ইকেট আরও অনেকেই নিয়েছেন, তবে তারা সবাই ছিলেন বয়সে তাসকিনের চেয়ে বড়।

৯) আবুল হাসান
বোলার হিসেবে দলে ঢুকেছিলেন অথচ বিশ্বরেকর্ড গড়েছেন ব্যাটসম্যানের ভুমিকায়। অভিষেক টেস্টেই ১০ নম্বরে ব্যাটিংয়ে নেমে ১১৩ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলে রেকর্ড বুকে নিজের নাম অমর করে নিয়েছেন ডানহাতি এই পেসার। ২০১২ সালে খুলনায় ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে এই কীর্তি গড়েন আবুল হাসান।

১০) মেহেদী হাসান মিরাজ
অভিষেকে চমক দেখানো আরেক ক্রিকেটার মেহেদী হাসান মিরাজ। ২০১৬ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে অভিষেক টেস্ট সিরিজের দুই ম্যাচে নিয়েছিলেন ১৯ উইকেট। ভেঙে দিয়েছিলেন টেস্ট ক্রিকেটে ১২৯ বছরের পুরনো রেকর্ড।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

মন্তব্য