ড. ইউসনূসের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি

বাংলাদেশের নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ ও গ্রামীণ ব্যাংকের প্রতিষ্ঠাতা ড. মুহাম্মদ ইউনূসের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন ঢাকার তৃতীয় শ্রম আদালত।

গ্রামীণ কমিউনিকেশন্সে ট্রেড ইউনিয়ন গঠন করায় চাকরিচ্যুতের অভিযোগরে দায়ের করা তিন মামলায় আজ বুধবার শ্রম আদালতের চেয়ারম্যান রহিবুল ইসলাম ড. ইউনূসের বিরুদ্ধে এ গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।

আজ ড. ইউনূসের বিরুদ্ধে করা তিন মামলায় সমনের জবাব দেওয়ার জন্য দিন ধার্য ছিল। কিন্তু ড. ইউনূস আদালতে উপস্থিত না হওয়ায় তাঁর বিরুদ্ধে এই গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়। মামলার অপর দুই আসামি হলেন প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজনীন সুলতানা ও উপ-মহাব্যবস্থাপক খন্দকার আবু আবেদীন।

ড. ইউনূসের আইনজীবী রাজু আহমেদ আদালতকে বলেন, ‘ড. ইউনূস একজন সম্মানিত ব্যক্তি। তিনি ব্যবসার কাজে বিদেশে অবস্থান করছেন। তিনি দেশে আসলে আদালতে উপস্থিত হবেন। যদিও তিনি বিদেশে থাকায় আমাকে পাওয়ার অব অ্যাটর্নি দেননি তবুও আপনার কাছে অনুরোধ করছি তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি না করার জন্য।’

মামলার বাদী প্রস্তাবিত গ্রামীন কমিউনিকেশন্স শ্রমিক কর্মচারি ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সালাম বলেন, ‘প্রতিষ্ঠানে ইউনিয়ন গঠন করায় চাকরিচ্যুত করায় আমরা ড. ইউনূসের বিরুদ্ধে মামলা করি। তিনি আজ আদালতে উপস্থিত না হওয়ায় আদালত তাঁর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন।’
অপরদিকে মামলার অপর দুই আসামি নাজনীন সুলতানা ও খন্দকার আবু আবেদীন আদালতে উপস্থিত হয়ে আত্মসমর্পন করে জামিন আবেদন করেন। শুনানি শেষে আদালত তাদের জামিন মঞ্জুর করেন।

এর আগে গত ৩ জুলাই ঢাকার তৃতীয় শ্রম আদালতে ড. মুহাম্মদ ইউনূসসহ তিন জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন গ্রামীণ কমিউনিকেশন্সের সদ্য চাকরিচ্যুত সাবেক তিন কর্মচারি। আদালত ৮ অক্টোবর তাদের আদালতে উপস্থিত হওয়ার জন্য সমন জারি করেন।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

মন্তব্য