আপডেট : ১২ জুলাই, ২০২০ ১৭:৩৫

যেভাবে নামকরণ করা হয়েছিল ফার্মগেটের

অনলাইন ডেস্ক
যেভাবে নামকরণ করা হয়েছিল ফার্মগেটের
১৯৯২ সালের ফার্মগেট। ছবি: সংগৃহীত

রাজধানীর ব্যস্ততম এলাকার মধ্যে ফার্মগেট অন্যতম। সেখানে ভোর হওয়ার আগ থেকেই শুরু হয় মানুষের অফিসে যাওয়ার ছোটাছুটি, আবার সন্ধ্যায় পর ঢল নামে ঘরমুখো মানুষের। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি কোচিং, কয়েকটি নামকরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ও একাধিক এলাকার সংযোগস্থলসহ বিভিন্ন কারণে ফার্মগেট নামটি খুবই পরিচিত। জায়গাটির নামকরণের নেপথ্যে রয়েছে দারুণ এক ইতিহাস।

রসায়নবিজ্ঞানী এবং শিক্ষাবিদ স্যার ফিলিপ জোসেফ হার্টগের সঙ্গেই ফার্মগেট নামকরণের সবচেয়ে বড় সম্পৃক্ততা রয়েছে। তিনি ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম উপাচার্য। জীবনের বড় একটি অংশ তিনি শিক্ষার উন্নয়ন ও প্রসারের পেছনে ব্যয় করেছিলেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মাত্র পাঁচ বছরের কর্মজীবনে অসংখ্য জনকল্যাণমূলক কাজের সঙ্গে জড়িয়ে ছিল স্যার ফিলিপের নাম। তৎকালীন বৃটিশ সরকারের অধীনে পাবলিক সার্ভিসে অসামান্য অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ তিনি ১৯৩০ সালে নাইটহুড উপাধি পান।

তৎকালীন পূর্ব বাংলায় গবাদিপশুসম্পদ, চামড়াশিল্প তথা কৃষি গবেষণার অপার সম্ভাবনার কথা শত বছর আগেই স্যার ফিলিপ ভেবেছিলেন। অর্থনৈতিকভাবে অনগ্রসর এই বাংলায় বেকারত্ব দূর করতে ১৯২২ সালে ব্রিটিশ সরকার ‘ঢাকা টেকনিক্যাল অ্যান্ড ভোকেশনাল এডুকেশন কমিটি’ গঠন করে। এই কমিটির সভাপতি ছিলেন স্যার ফিলিপ হার্টগ। পর্যায়ক্রমে কৃষি উন্নয়ন, কৃষি ও পশুপালন গবেষণার জন্য একটি ফার্ম বা খামার তৈরি করার উদ্যোগ নেয় সরকার।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এখানে কৃষি গবেষণার সূচনা করেন হার্টগ। প্রতিষ্ঠিত হয় এগ্রিকালচার ইনস্টিটিউট। সেই ফার্মের প্রধান ফটক বা গেট যে এলাকায় ছিল, সেটার নামই আজ ফার্মগেট! তাই আজ ফার্মগেটে জ্যামে বসে থেকে কিংবা ফুটওভার ব্রিজ দিয়ে রাস্তা পার হওয়ার সময় আপনি যদি স্যার ফিলিপ হার্টগের কথা স্মরণ করেন, তা বোধহয় খুব একটা ভুল হবে না!

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/রাসেল

উপরে