আপডেট : ৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৮:২২

জেনেশুনে সংবিধান লঙ্ঘন করিনি: মোজাম্মেল

বিডিটাইমস ডেস্ক
জেনেশুনে সংবিধান লঙ্ঘন করিনি: মোজাম্মেল

‘সংবিধান রক্ষার শপথ ভেঙেছেন’ বলে আপিল বিভাগ রায় দিলেও ‘জেনেশুনে’ তা করেননি বলে মন্তব্য করেছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।

শনিবার রাজধানীতে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। মোজাম্মেল বলেন,“সংবিধান লঙ্ঘনের ব্যাপারে মহামান্য আদালত যে কথা বলেছে… আমি জেনেশুনে সংবিধান লঙ্ঘন করতে পারি না, করি নাই।”

“কারণ এই সংবিধান মুক্তিযোদ্ধাদের রক্তে লেখা সংবিধান, যা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান রচনা করে গেছেন। আমি বলতে চাই, সংবিধান লঙ্ঘন করেছি, সেটা পাকিস্তানের সংবিধান। যে সংবিধান আমি লাথি মেরে বঙ্গোপসাগরে ফেলে দিতে চাই।”

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী বলেন, “বাহাত্তরের সংবিধানকে জিয়া, এরশাদ ও খালেদা ৩০ বছর পদদলিত করেছিল। আমরা এই সংবিধানকে সমুন্নত রেখেছি, রক্ষা করেছি। যে কোনো মূল্যে এই সংবিধানকে সমুন্নত রাখার চেষ্টা করে যাব।”

আদালতের রায়ের বিষয়ে এখন আর কোনো মন্তব্য করতে চান না জানিয়ে মোজাম্মেল বলেন, “রায়ের কপি হাতে পেয়ে আইনজীবীদের সঙ্গে আলোচনা করে তারপর কথা বলব।”

যুদ্ধাপরাধী মীর কাসেম আলীর চূড়ান্ত রায়ের আগে সর্বোচ্চ আদালতকে নিয়ে করা মন্তব্যের জন্য খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হকের নিঃশর্ত ক্ষমার আবেদন প্রত্যাখ্যান করে প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা নেতৃত্বাধীন আট সদস্যের আপিল বিভাগ গত ২৭ মার্চ ওই রায় দেয়। সেই রায় বৃহস্পতিবার আপিল বিভাগের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়।

রায়ে বলা হয়, “সংবিধানে বর্ণিত আইনের শাসন রক্ষার যে শপথ বিবাদীরা নিয়েছেন, সেই দায়িত্বের প্রতি তারা অবহেলা করেছেন।

“তারা আইন লঙ্ঘন করেছেন এবং সংবিধান রক্ষা ও সংরক্ষণে তাদের শপথ ভঙ্গ করেছেন।”

আদালতের রায়ে শপথ ভঙ্গ হওয়ায় দুই মন্ত্রী পদে থাকার অধিকার হারিয়েছেন বলে ইতোমধ্যে  মত দিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী শাহদীন মালিক।

শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদের আলোচনা সভায় রায়ের বিষয়ে মোজাম্মেল হকের প্রতিক্রিয়া পাওয়া গেলেও এ বিষয়ে কামরুল ইসলামের কোনো বক্তব্য এখনও আসেনি।

‘জঙ্গি সন্ত্রাস দমনে প্রয়োজন বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বাস্তবায়ন’ শীর্ষক এ সভার আয়োজন করে বঙ্গবন্ধু গবেষণা পরিষদ নামের একটি সংগঠন।

মোজাম্মেল হক বলেন, নিড়ানী দিয়ে যেমন আগাছা পারিষ্কার করা হয়, তেমনি বাংলাদেশ থেকে জঙ্গিদের চিরদিনের মতো বিতাড়িত করতে হবে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আরকে

উপরে