আপডেট : ৮ জুলাই, ২০২০ ১৩:১৮

ভারতে টিকটক নিষিদ্ধ হওয়ায় যত টাকা ক্ষতি

অনলাইন ডেস্ক
ভারতে টিকটক নিষিদ্ধ হওয়ায় যত টাকা ক্ষতি

ভারতে অন্যতম জনপ্রিয় ভিডিও অ্যাপ টিকটক নিষিদ্ধ হয়ে যাওয়ায় মাথায় হাত চিনা প্রযুক্তি কোম্পানি বাইটডান্স লিমিটেডের। নিষিদ্ধ হয়ে গেছে ওই সংস্থারই তৈরি আরও দুটি অ্যাপ ভিভা ভিডিও এবং হ্যালো। তাদের তৈরি এই ৩টি অ্যাপই নিষিদ্ধ হয়ে যাওয়ায় সব মিলিয়ে কমপক্ষে ৬ বিলিয়ন ডলার ক্ষতির আশঙ্কা করছে সংস্থাটি। 

গত সোমবার ৫৯টি চিনা অ্যাপকে নিষিদ্ধ করার কথা ঘোষণা করে ভারত সরকার। এই অ্যাপগুলোর মধ্যে রয়েছে টিকটক, উইচ্যাট এবং ইউসি ব্রাউজারের মতো জনপ্রিয় অ্যাপও। ২৯ জুন ভারতের তথ্য়প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় জানায়, ওই চিনা অ্য়াপগুলো দেশের সার্বভৌমত্ব, অখণ্ডতা, দেশের সুরক্ষার জন্য় ক্ষতিকারক। সে কারণেই ওই অ্য়াপগুলোকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। 

যদিও বাইটডান্স সংস্থাটির পক্ষ থেকে বারবার করে এই কথা বলা হচ্ছে যে, টিকটক ব্যবহারকারীদের তথ্যের গোপনীয়তা রক্ষায় বরাবর জোর দিয়েছে তারা। কোনোভাবেই ভারতীয়দের কোনও ব্যক্তিগত তথ্য ফাঁস হয়ে যায়নি। ভারতে যেভাবে রাতারাতি ৫৯ টি চাইনিজ অ্যাপ্লিকেশনকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে সেই সিদ্ধান্তকে নজিরবিহীন বলে উল্লেখ করে বাইটডান্সের সাম্প্রতিক রিপোর্টে বলা হয়েছে, বিদেশে সর্বাধিক জনপ্রিয় চিনা অ্যাপ হিসাবে নিজের জায়গা করে নেওয়া টিকটকের উপর এটা একটা বিশাল আঘাত। চিনের বাইরে যেসব দেশে টিকটকের ভালো ব্যবসা হচ্ছিল তার মধ্যে অন্যতম হল ভারত। চলতি বছরের প্রথম ৩ মাসে ভারতে টিকটক অ্যাপটি ৬১১ মিলিয়ন সংখ্যক ডাউনলোড হয়েছে, যা সারা বিশ্বের মোট ডাউনলোডের ৩০.৩% এর কাছাকাছি।

বাইটড্যান্স সংস্থার যে ৩টি অ্যাপ্লিকেশন নিষিদ্ধ হয়ে গেছে তারা হল, ছোট ছোট ভিডিও তৈরির প্ল্যাটফর্ম টিকটক এবং ভিভো ভিডিও এবং সোশ্যাল সাইটের অন্যতম জনপ্রিয় অ্যাপ্লিকেশন হ্যালো।

এদিকে ভারতে টিকটক সহ বাইটডান্স সংস্থার ৩টি জনপ্রিয় অ্যাপ বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বহু ভারতীয়ও কাজ হারানোর মুখে। কারণ এই সংস্থার অধীনে সে দেশে ২ হাজারেরও বেশি কর্মী কাজ করতেন। সূত্র: এনডিটিভি

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/রাসেল

উপরে