আপডেট : ৫ জুলাই, ২০২০ ১৭:৪২

হাতে মারতে হল না পানিতেই ভেসে গেল চীনের ঘাঁটি

অনলাইন ডেস্ক
হাতে মারতে হল না পানিতেই ভেসে গেল চীনের ঘাঁটি

চীনকে আর হাতে মারতে হল না। প্রকৃতির কোপে চীনের সেনাবাহিনী। হঠাৎ করে গালওয়ানের নদীতে জলস্তর বৃদ্ধি পেয়েছে। যার কারণে প্লাবিত হয়েছে গালওয়ান নদী তীরের বিস্তীর্ণ এলাকা। গত কয়েকদিনে নদী উপত্যকায় ঘাঁটি গেড়ে ছিল চীনা সেনা। তৈরি করেছিল একাধিক তাবু, ঘাঁটি। জানা যাচ্ছে, নদীর পানিতে ভেসে গিয়েছে একাধিক ঘাঁটি। যার ফলে চীনের বাহিনী এলাকা ছেড়ে যেতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে।

গত কয়েক মাস ধরে সীমান্তের ওপারে সেনা সমাবেশ করেছিল বেজিং। চীনের দাবি গালওয়ান নাকি তাঁদের। আর তা নিয়েই সংঘাত শুরু। নদীর চারপাশে হঠাৎ করেই ঘাঁটি তৈরি করতে থাকে বেজিং। এমনকি, স্যাটেলাইটে ধরা পড়া ছবিতে দেখা গিয়েছে যে, নদীর জল ঘুরিয়ে দেওয়ার জন্যে বেশ কয়েকটি বুলডোজারও তাঁরা নিয়ে এসেছে। রীতিমত মিলিটারি কার্যকলাপ শুরু করে বেজিং।

আর তা রুখে দিতে গেলে গত মাসের ১৫ তারিখ রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ বাঁধে। ভারতীয় সেনার ২০ জন সেনাসহ একজন অফিসার শহীদ হন। পালটা চীনের তরফেও ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়। আর এরপর থেকেই দুপক্ষের পালটা রণ প্রস্তুতি শুরু। তবে ভারতের তরফে বারবার সেনা সরানোর কথা বলা হয়েছে। দফায় দফায় চলেছে আলোচনাও। কিন্তু এখনও সেনা সরায়নি তাঁরা। তবে এবার আর ভারতকে হাতে মারতে হল না চিনকে।

গালওয়ানের নদীতে হঠাত করেই ব্যাপক জলস্তর বৃদ্ধি পেয়েছে। যার ফলে নদীর দুধার ভেসে গিয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। এক সেনা আধিকারিক জাতীয় এক সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, তাপমাত্রা বৃদ্ধির কারণে আকসাই চিন এলাকা থেকে উৎপন্ন হওয়া গালওয়ান নদীর জলস্তর বেড়েছে।

ওই সংবাদমাধ্যমকে তিনি জানিয়েছেন, দ্রুত হারে বরফ গলতে থাকায়, গালওয়ানের নদীর তীরের যে কোনও জায়গা বিপজ্জনক বলে দাবি করেছেন তিনি। শুধু তাই নয়, স্যাটেলাইটের ছবি এবং ড্রোনের ছবি খুটিয়ে দেখছে ভারত। যেখানে ইঙ্গিত মিলেছে, গালওয়ানের পিছনের দিকে চিনের ঘাঁটিগুলি সমস্ত ভেসে গিয়েছে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/রাসেল

উপরে