লকডাউনে অমানবিক দৃশ্য, হাজার হাজার কুকুরকে নৃশংস হত্যা | BD Times365 লকডাউনে অমানবিক দৃশ্য, হাজার হাজার কুকুরকে নৃশংস হত্যা | BdTimes365
logo
আপডেট : ২০ মে, ২০২০ ১৭:২১
লকডাউনে অমানবিক দৃশ্য, হাজার হাজার কুকুরকে নৃশংস হত্যা
অনলাইন ডেস্ক

লকডাউনে অমানবিক দৃশ্য, হাজার হাজার কুকুরকে নৃশংস হত্যা

প্রতি বছর পাকিস্থানে মারা হয় হাজার হাজার রাস্তার কুকুর। পাকিস্তানের প্রতিটি শহরেই এমন নৃশংস ভাবে হত্যা করা হয় কুকুরদের। প্রতি বছর সরকার থেকে প্রায় ৫০ হাজার কুকুর হত্যা চলে। পাকিস্তান সরকারের কোন রকম পশু নিরাপত্তা আইন নেই। পশুদেরকে নিরাপদ স্থানে নিয়ে গিয়ে তাদেরকে আশ্রয় দেওয়ার মতন কোন ব্যবস্থাই সেই সরকার নেয় না। 

শুধু তাই নয়, সাধারণ মানুষ এই বিষয়টিকে মদত দেয়। ২০০৯ সালে প্রায় ২৭ হাজারের বেশি কুকুর মারা হয়েছিল লাহোরে। ২০০৫ সালে ওই লাহোরেই মারা হয়েছিল ৩৪ হাজারেরও বেশি কুকুরকে। ছোট ছোট শহরগুলোতেও বছরে ৩ হাজার থেকে ৬ হাজার কুকুর মারা হয়। কিন্তু কেন এমনই অমানবিকতা? ওই অবলা প্রভুভক্ত প্রাণীটি কি এমন ক্ষতি করে?

রাস্তায় ছাড়া নিজের মতন থাকে শুধু তাই নয়, রাত্রি হলে তো শহর পাহারাও দেয়। ফেলে দেওয়া খাবার খেয়েই তো জীবন ধারণ করে। তবে কেন এমন নির্মম হত্যা? মানুষ এত অমানবিক হয় কি করে? এ প্রশ্নের উত্তর জানা নেই। হয়তো তাদের সংখ্যা কমানোর জন্যই এমন হত্যা। কিন্তু তার জন্য তো রয়েছে অন্য পদ্ধতি। যে কুকুর গুলো রয়েছে তাদেরই তো চিকিৎসার মাধ্যমে জন্মনিয়ন্ত্রণ করা যেতে পারে। তাহলে সংখ্যা কমানো সম্ভব।

এ পৃথিবীতে মানুষের মতন সকল জীবজন্তুর বেঁচে থাকার সমান অধিকার রয়েছে। মানুষ একটু বুদ্ধিতে বেশি বলে সে কখনোই পৃথিবীটাকে নিজের আয়ত্বে নিয়ে আসতে পারেনা। পুরো পৃথিবীটা কখনোই তার একার হতে পারেনা। মানুষের খামখেয়ালীপনার জবাব দিতে হচ্ছে এই অবলা প্রাণী গুলোকে। রাস্তায় শুয়ে রয়েছে হাজার হাজার কুকুরের লাশ। পশুপ্রেমীরা এমন দৃশ্য দেখলে সত্যিই চোখ ফেটে জল আসবে। শুধু পশুপ্রেমী না যার মধ্যেই যদি মনুষ্যত্ব থাকে, তাহলে সে কষ্ট পাবে এমন দৃশ্য দেখে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/রাসেল