জয় দিয়েও সমর্থকদের মন পাচ্ছেন না রোনালদো | BD Times365 জয় দিয়েও সমর্থকদের মন পাচ্ছেন না রোনালদো | BdTimes365
logo
আপডেট : ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৫ ১২:০৪
জয় দিয়েও সমর্থকদের মন পাচ্ছেন না রোনালদো
অনলাইন ডেস্ক

জয় দিয়েও সমর্থকদের মন পাচ্ছেন না রোনালদো

রিয়াল মাদ্রিদ সমর্থকদের সঙ্গে সম্পর্কটা দিনকে দিন দিন খারাপই হচ্ছে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর। সাধারণত প্রতিপক্ষ দর্শকদের উদ্দেশে তাঁর একটি বিখ্যাত উদযাপন আছে ‘শান্ত হও’। কিন্তু গত ম্যাচে সেটি করেছিলেন নিজ দলের সমর্থকদের উদ্দেশে।

​ম্যাচের শুরুর দিকেই পেনাল্টি পেয়েছিল রিয়াল। সেই পেনাল্টি মিস করেন রোনালদো।

৪০ মিনিট পর্যন্ত গোলশূন্য স্কোরলাইন বার্নাব্যুর সমর্থকদের বেশি করে পোড়াচ্ছিল হয়তো সেই পেনাল্টি মিস। ৪১ মিনিটে রেফারির বিতর্কিত সিদ্ধান্তে আবারও পেনাল্টি পায় রিয়াল। এবার গোল করতে ভুল হয়নি রোনালদোর। তবুও পুরো গ্যালারির মন জিততে পারেননি তিনি।

মাঝখানে শীতের বিরতি রোনালদো-সমর্থকদের সম্পর্কের শীতলতা আরও বাড়িয়েছেই হয়তো। আজও দুয়ো শুনলেন রোনালদো। রিয়াল অবশ্য দুয়ো আর বিতর্কিত একটি পেনাল্টির সৌভাগ্যকে একপাশে ঠেলে রিয়াল সোসিয়েদাদের বিপক্ষে জিতল ৩-১ গোলে।

৪৯ মিনিটে সোসিয়েদাদ ১-১ করে ফেললে নিশ্চুপ থাকা গ্যালারির অর্ধেক অংশ আবারও দুয়োতে সরব হয়। ৬৭ মিনিটে সেই রোনালদোই দুর্দান্ত এক গোলে ২-১ করে যেন পাল্টা জবাব দিতে চান। ৮৬ মিনিটে লুকাসের গোলে শঙ্কা উড়িয়ে পুরো তিন পয়েন্টই নিশ্চিত করে রিয়াল।

রিয়াল প্রথম পেনাল্টি পায় ২৪ মিনিটে। বক্সে বেনজেমাকে ফেলে দেন সোসিয়েদাদ ডিফেন্ডার ইউরি বার্চিচে। পেনাল্টি নিতে এগিয়ে এলেন রোনালদো। গোল তো হয়েই গেছে ভেবে নিয়েছিলেন সবাই।

রোনালদো পেনাল্টি মিস করছেন, এ তো বিরলতম দৃশ্য। রোনালদোর জোরালো শটটি ক্রসবারের ওপর দিয়ে চলে যায় মাঠের বাইরে। দুয়োতে দুয়োতে বার্নাব্যুতে তখন কান পাতা দায়।

৪২ মিনিটেই প্রায়শ্চিত্ত করলেন রোনালদো। গ্যারেথ বেলের ক্রস আটকাতে ডাইভ দিয়েছিলেন  সেই ইউরিই, যার কারনে প্রথম পেনাল্টি পেয়েছিলো রিয়াল। বল তাঁর পায়ে লেগে দিক বদল করে হাতে লাগে। ফুটবলে যাকে বলে ‘ডিফ্লেকটেড’। কিন্তু রেফারি আবারও পেনাল্টির বাঁশি বাজিয়ে দেন। ভাষ্যকারেরাও বলছিলেন, ‘এটা পেনাল্টি হতেই পারে না।’

রোনালদো গোল করে রিয়ালকে এগিয়ে দিলেও দর্শকের দুয়ো তখনো থামেনি।

দ্বিতীয়ার্ধের চতুর্থ মিনিটেই আবারও পর্তুগিজ ঝলক। না, এবার রোনালদো নন।

সোসিয়েদাদের পর্তুগিজ খেলোয়ার ব্রুমা ডি বক্সের ভেতর থেকে যে শটটি নিলেন, সেটি আটকানোর ক্ষমতা ছিল না রিয়াল গোলরক্ষক কেইলর নাভাসের। সমতা ফেরাল সোসিয়েদাদ।

কিন্তু ৬৭ মিনিটেই আবারও রোনালদো ঝলক। কর্নার থেকে বল পেয়ে বা পায়ের জোরালো শটে আবারও জালে বল জড়ালেন।

তখনো শঙ্কা ছিল সোসিয়েদাদ শেষ মুহূর্তে গোল শোধ করলে না আবার দুই পয়েন্ট হারাতে হয়। ৮৬ মিনিটে লুকাস ভাসকুয়েজের গোল সবকিছুই মিটিয়ে দিল।

কিন্তু দিতে পারল কি? বেনিতেজও যে পুরো ৯০ মিনিট দুয়ো হজম করে গেলেন।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/এআর