আপডেট : ৪ জুন, ২০১৮ ২০:০৯

আর্জেন্টিনাই জিতবে বিশ্বকাপ ভারতীয় জ্যোতিষী

অনলাইন ডেস্ক
আর্জেন্টিনাই জিতবে বিশ্বকাপ ভারতীয় জ্যোতিষী

রাশিয়ার বিশ্বকাপ শুরু হতে আর বাকি মাত্র কয়েকদিন। ১৪ জুন থেকে শুরু হচ্ছে  বিশ্বকাপের একুশতম আসর। ফুটবলপ্রেমীরা প্রিয় দলের সমর্থন যোগাতে নানাভাবে নিজেদের তৈরি করছেন। সবার মনেই  জাগছে একটি প্রশ্ন কে জিতবে বিশ্বকাপ? চুলচেরা বিশ্লেষণে রীতিমতো ঘাম বের হয়ে যাচ্ছে ফুটবল বিশেষজ্ঞদের। প্রতিবারের মতো এবারও শুরু হয়ে গিয়েছে ভবিষ্যত বাণী। কে জিতবে বিশ্বকাপ, একেক রকম যুক্তি দিচ্ছেন জ্যোতিষীরা। কয়েকদিন আগেই অস্ট্রিয়ার সংখ্যাতত্ববিদরা অঙ্ক কষে দাবি করছিলেন ব্রাজিলই হবে এবারের চ্যাম্পিয়ন, হতাশ হতে হয়েছিল আর্জেন্টিনা ভক্তদের।

গ্রিনস্টোন লোবো নামে এক ভারতীয় জ্যোতির্বিজ্ঞানী বলেছেন, এবছর বিশ্বকাপ জিতবে সেই দেশই যে দেশের অধিনায়কের জন্ম ১৯৮৬ বা ১৯৮৭ সালে৷ কারণ ওই বছরে জন্মালে গ্রহ নক্ষত্র নাকি বাড়তি সুবিধা পাইয়ে দেবে অধিনায়কদের। তাহলে কে জিতবে বিশ্বকাপ?  ভারতীয় গণমাধ্যম সংবাদ প্রতিদিনের প্রকাশ করা প্রতিবেদনে লোবোর যুক্তি অনুযায়ী বলা হচ্ছে, ব্রাজিলের কোনো সম্ভাবনা নেই, কারণ সেলেকাওদের নিয়মিত অধিনায়ক নেইমারের জন্ম ১৯৯২ সালে। পাঁচবারের বিশ্বসেরাদের নতুন অধিনায়ক হিসেবে শনিবার ক্রোয়েশিয়ার বিপক্ষে খেলতে নামেন গ্যাব্রিয়েল জেসুস। ম্যানচেস্টার সিটির এই তারকা বয়স মাত্র ২১।

সম্ভাবনা নেই ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোরও। পর্তুগালের এই ফরোয়ার্ডের জন্ম ১৯৮৫ সালে। তাহলে কারা আছেন লড়াইয়ে, কোন কোন অধিনায়কের সুযোগ রয়েছে রাশিয়া বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন হবার?  লড়াইয়ে রয়েছে অনেকগুলো বড় বড় নাম। তবে, এদের অধিকাংশেরই দল খাতা কলমে বিশ্বকাপ জয়ের উপযুক্ত নয়। যে দলগুলো বিশ্বকাপ জয়ের লড়াইয়ে আছে তাদের মধ্যে চারটি দলের অধিনায়কের জন্ম ১৯৮৬ বা ১৯৮৭ সালে। কোন কোন দেশের দলপতিরা রয়েছেন তালিকায়?

জার্মানির ম্যানুয়েল নয়্যার, ফ্রান্সের হুগো লরিস, স্পেনের সার্জিও রামোস এবং আর্জেন্টিনার লিওনেল মেসি এবছর অধিনায়ক হিসেবে বিশ্বকাপ জিততে পারেন! এমনটাই দাবি করছেন লোবো। কিন্তু এই চার দলের মধ্যে কে এগিয়ে কে পিছিয়ে? ওই জ্যোতির্বিজ্ঞানীর যুক্তি, জার্মান অধিনায়ক এবং কোচ জোয়কিম লো যেহেতু ২০১৪ সালে বিশ্বকাপ জিতেছেন তাই, এবছর তাদের সুযোগ কম। গ্রহ নক্ষত্রের বিচারে যে বাড়তি সুবিধা পাবার কথা ছিলো নয়্যার আগের বারই তা পেয়ে গেছেন।তাহলে রইল বাকি তিনটি দল। রামোসও ২০১০ সালে বিশ্বকাপ জিতেছেন, তাছাড়া রিয়াল মাদ্রিদের দলপতি হিসেবে চলতি মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন লিগের শিরোপাও জিতেছেন ৩২ বছর বয়সী এই তারকা।  তাই এই ডিফেন্ডারের সুযোগ কম। রইল বাকি দুটি দল ফ্রান্স এবং আর্জেন্টিনা

লোবোর দাবি, ফ্রান্স এবং আর্জেন্টিনা দুটি দলেরই প্রায় সমান সুযোগ রয়েছে বিশ্ব সেরা হবার ।  ইউরোপের দেশটির থেকে আলবিসেলেস্তেরা কিছুটা এগিয়ে। কারণ, ফ্রান্সের কোচ দিদিয়ের দেশম ১৯৯৮ সালে ফুটবলার হিসেবে বিশ্বকাপ জিতে নিয়েছেন। সে তুলনায় হর্হো সাম্পাওলির শিষ্যদের অধিনায়ক মেসি এখনও বড় কোনও ট্রফি জিততে পারেননি তাই অঙ্কের বিচারে এবার আর্জেন্টিনারই চ্যাম্পিয়ন হওয়া উচিত।

এর আগে নাকি একাধিক বার লোবোর ভবিষ্যদ্বাণী মিলে গিয়েছে। বলিউডের তিন খান (শাহরুখ-সালমান-আমির), সঞ্জয় দত্ত, কারিনা কাপুর, রণবীর কাপুর ও শহীদ কাপুরকে নিয়েও ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন। ভারত ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি ও অলরাউন্ডার যুবরাজ সিংও বাদ জাননি। ২০১০ সালে স্পেন এবং ২০১৪ সালে জার্মানি চ্যাম্পিয়ন হবে তাও নাকি দাবি করেন গ্রিনস্টোন লোবো। তবে কী গত দুইবারের মতো এবারেও মিলবে লোবোর ভবিষ্যৎবাণী? তা যদি হয় তাহলে তো আর্জেন্টিইন ভক্ত-সমর্থকদের উৎসবের কমতি থাকবে না।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/রাসেল

উপরে