আপডেট : ৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৭:৩৭

‘শিক্ষকতা পেশায় যোগ্য ব্যক্তিদের আকৃষ্ট করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ’

অনলাইন ডেস্ক
‘শিক্ষকতা পেশায় যোগ্য ব্যক্তিদের আকৃষ্ট করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সন্ত্রাসবাদ সমস্যা সমাধানে শিক্ষা কার্যক্রম সংস্কার করা হচ্ছে। একই সঙ্গে তিনি শিক্ষকতা পেশায় যোগ্যদের আকৃষ্ট করার উপায় খোঁজার তাগিদ দিয়েছেন। তিনি বলেন, শিক্ষকতা পেশায় যোগ্য ব্যক্তিদের আকৃষ্ট করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

আজ রোববার রাজধানীর একটি হোটেলে ই-নাইন ফোরামের একাদশ মন্ত্রী পর্যায়ের পর্যালোচনা সভা উদ্বোধনের সময়  প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘সন্ত্রাসবাদ, সহিংস উগ্রবাদ এবং সশস্ত্র সংঘাত আজকের বিশ্বে মানবাধিকার, শান্তি ও স্থিতিশীলতার প্রতি হুমকি হিসেবে দেখা দিয়েছে। উদ্ভাবন, সমঝোতা ও দূরদর্শী নীতির দ্বারা এসব সমস্যার সমাধান করা সম্ভব। এসব বিষয়কে সামনে রেখে আমরা আমাদের শিক্ষাক্রম ও শিক্ষা উপকরণকে সংস্কার করছি।’

প্রধানমন্ত্রী জানান, প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ে জেন্ডার সমতা অর্জন এবং প্রাথমিক পর্যায়ে শতভাগ ভর্তি নিশ্চিত করেছে তাঁর সরকার। তিনি জানান, শিক্ষানীতি প্রণয়ন এবং শিক্ষা ক্ষেত্রে প্রযুক্তি ব্যবহার বাড়ানো হয়েছে।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘শিক্ষকদের পেশাগত মানোন্নয়নের জন্য শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ কর্মসূচির ওপর বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। শিক্ষকতা পেশায় যোগ্য ব্যক্তিদের আকৃষ্ট করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এ পেশার জন্য একটি দক্ষ জনশক্তি গড়ে তোলার চ্যালেঞ্জ বিবেচনায় নিয়ে নীতিগত উপায় উদ্ভাবন এবং বিশেষ প্রণোদনার বিষয়ে চিন্তাভাবনা করা প্রয়োজন।’

সবার জন্য শিক্ষা নিশ্চিত করার লক্ষ্য নিয়ে ১৯৯৩ সালে যাত্রা শুরু করে ই-নাইন ফোরাম। বাংলাদেশ, ব্রাজিল, চীন, মিসর, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, মেক্সিকো, নাইজেরিয়া ও পাকিস্তান এ নয়টি দেশ মিলে গঠিত ই-নাইন ফোরামে বিশ্বের মোট জনগোষ্ঠীর ৬০ শতাংশ মানুষ বসবাস করে। তবে শিক্ষা ক্ষেত্রে পিছিয়ে থাকা এ দেশগুলোকে জাতিসংঘের টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য অর্জনে, সবার জন্য গুণগত মানসম্পন্ন শিক্ষা নিশ্চিত করার উপায় খুঁজতেই ই-নাইন ফোরামের মন্ত্রী পর্যায়ের এ বৈঠক। এতে প্রধানমন্ত্রী শিক্ষা খাতে বাংলাদেশের অগ্রগতি ও পরিকল্পনা তুলে ধরেন।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/রাসেল

উপরে