আপডেট : ৩০ জুলাই, ২০১৬ ১৫:০৫

চ্যাম্পিয়ান ‘আইইউটি রেড নাইট’

জামিল মাহমুদ
চ্যাম্পিয়ান ‘আইইউটি রেড নাইট’

ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজিতে (আইইউটি) মেকানিক্যাল এন্ড কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং ডিপার্টমেন্ট এর আয়োজনে হয়ে গেলো ‘মেক্সিলারেশন ২০১৬।’ এ প্রতিযোগীতায় বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫০টি দলকে পেছনে ফেলে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ‘আইইউটি রেড নাইট’।

‘আইইউটি রেড নাইট’ দলের চার সদস্য। দলনেতা মাহমুদুল হাসান পাভেল পড়েন মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে  ৩য় বর্ষে। সদস্য মেহেদী হাসান শিশির ইলেক্ট্রীকেল এন্ড ইলেক্ট্রনিকস বিভাগ ৩য় বর্ষে, কম্পিউটার সায়েন্স ২য় বর্ষে পড়েন হুসাইন মোহাম্মদ সিয়াম ও মেহেদী হাসান মুকিত।

রোবোটিক্সে আসার শুরুর গল্প বলেন দলনেতা পাভেল নিজেই। তারা সবাই কুমিল্লা ক্যাডেট কলেজে শিক্ষার্থী ছিলেন। ২০১৩ সালের মাঝামাঝি সময়। অবসরে ইউটিউবে দেশের বাইরের রোবট নিয়ে বিভিন্ন ভিডিও দেখেন তিনি। এ ভিডিও দেখার পরেই মনে মনে আগ্রহ তৈরি হয়। এ নিয়ে কথা হয় বাকি তিনজনের সঙ্গে। সবাই একমত। রোবট নিয়ে কাজ করবেন। এরপর ২০১৩- ১৪ শিক্ষাবর্ষে আইইউটি ভর্তী হন পাভেল আর শিশির। সেবার প্রথম শুরু হয় ‘মেক্সিলারেশন আন্ত-বিশ্ববিদ্যালয়’ প্রতিযোগীতা। এ প্রতিযোগতীতায় ‘রোবট কম্পিটিশন’ নামে একটা ক্যাটাগরি ছিল। সেখানে চারজনের একটি টিম গঠন করেন তিনি। কিন্তু সে টিম আর বেশিদিন টিকেনি। তাই বলে স্বপ্ন ভাঙেনি পাভেলের। আবার উঠেপড়ে লেগে গেলেন। এবার যোগ দিলেন সেই পুরনো দুইবন্ধু সিয়াম ও মুকিত। এখন তারা চারবন্ধু মিলেই ‘আইইউটি রেড নাইট’।

এবছর ২২ জুলাই  ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অব টেকনেলজিতে (আইইউটি) হয়ে গেল মেক্সিলারেশন ২০১৬ আন্ত:বিশ্ববিদ্যালয় রোবটিক্স প্রতিযোগিতা। বুয়েট, কুয়েট, রুয়েট, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়,আহসানুল্লাহ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি, ডুয়েট, মিলিটারি ইন্সটিটিউট অফ সায়েন্স এন্ড টেকনোলোজি, ব্র্যাকসহ দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে প্রায় ৫০ টিরও বেশি দল অংশ নেয়। সবাইকে পেছনে ফেলে চ্যাম্পিয়ান হয় ‘আইইউটি রেড নাইট’। প্রাইজমানি পেয়েছেন ৩৩ হাজার টাকা। রানার্সআপ হিসেবে দ্বিতীয় হয় বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস অ্যান্ড টেকনোলজি (বিইউবিটি) ‘উইনার ০৯’ নামে একটি দল। তারা প্রাইজমানি পেয়েছে ২২ হাজার টাকা।  

এর আগেও চ্যাম্পিয়ান হয়েছে তাদের দল। সেটি ১৫ ডিসেম্বর ২০১৫ সালের ঘটনা। ওয়াল্ড ইউনিভার্টিতে অংশ নেয় তারা। সেখানে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩২ টিমকে পেছনে ফেলে চ্যাম্পিয়ান হয় তাদের রোবট। প্রাইজমানি পেয়েছিলেন ৩ হাজার টাকা। এরপর ২৭ ডিসেম্বর ২০১৫ সালে অংশ নেয় মিলিটারি ইনস্টিটিউট অব সায়েন্স এ্যান্ড টেকনোলজিতে (এমআইএসটি) রোবোটিক্স প্রতিযোগীতায়। সেখানে তৃতীয় হয় তাদের দল। প্রাইজমানি পেয়েছিলেন সাড়ে ছয় হাজার টাকা।

‘আইইউটি রেড নাইট’ রোবটটি বানাতে তাদের সময় লেগেছে দেড়মাস। রোবটটি লম্বায় ১৭ সেন্টিমিটার, প্রস্থে ১৫ সেন্টিমিটার। সর্বোচ্চ ৫ কেজি ওজন বইতে পারে। প্রতি সেকেন্ডে ১ মিটার অতিক্রম করতে পারে। ওজন হলো ১ কেজি। এটির পেছনে তাদের ১০ হাজার টাকা খরচ হয়েছে। নিজেদের বানানো রোবট চ্যাম্পিয়ান হওয়ায় খুবই খুশি দলনেতা পাভেল বলেন, এ প্রতিযোগীতায় চ্যাম্পিয়ান হয়ে আমাদের উৎসাহ বেড়েছে। ভবিষ্যতে দেশে এবং বিদেশে এরচেয়ে বড় রোবট প্রতিযোগতায় অংশ নেবো। যাতে করে দেশে বাইরে সুনাম বয়ে আনবে আমাদের এই রোবট।

রোবটটি কি কি কাজ করতে পারে জানতে চাইলে দলনেতা মাহমুদুল হাসান পাভেল বলেন, রোবটি দৈনন্দিন মানুষের কাজে আসবে। যেমন: সকালে ঘুম ভাঙাবে। টেবিলে নাস্তা সাজিয়ে রাখবে। ঘর পরিস্কার করতে পারবে। অফিসে স্যুটকেস সহ যাবতীয় কাগজপত্র গাড়িতে রেখে আসতে পারবে। উচু ভবনে যে জায়গা মানুষের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ সে জায়গায় কাজ করতে পারবে। 

জেডএম

 

উপরে