আপডেট : ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২১:৪৩

বিপিএল সেই বিতর্কিত পথেই

নিজস্ব প্রতিবেদক
বিপিএল সেই বিতর্কিত পথেই

বিতর্কমুক্ত হওয়ার জন্য বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) গত আসরে কিছু নিয়ম করেছিল বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। কিন্তু আগামী ৪ নভেম্বর থেকে চতুর্থ আসর শুরুর আগে সেই বিতর্কিত নিয়মই ফিরিয়ে আনা হয়েছে। ‘কনফ্লিক্ট অব ইন্টারেস্ট’ যাতে না হয়, সেজন্য গতবার জাতীয় নির্বাচকদের কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজির সঙ্গে যুক্ত হওয়ার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছিল। এবার সেটি তুলে নিয়ে নির্বাচকদের বিপিএলে কাজ করার সুযোগ করে দেওয়া হয়েছে। এটি নিয়ে যেমন, তেমনি লটারিভিত্তিক প্লেয়ার্স ড্রাফটের আগেই তারকা ক্রিকেটারদের বিভিন্ন দলে যাওয়ার সুযোগ করে দেওয়া নিয়েও তো কম বিতর্ক হচ্ছে না।

বিতর্ক হওয়া খুব স্বাভাবিকও। কারণ গতবার ‘আইকন’ ক্রিকেটারদের মধ্য থেকে লটারিতে নাসির হোসেনকে পেয়ে খুব একটা সন্তষ্ট ছিল না ঢাকা ডায়নামাইটস। যে দলটির মালিক বেক্সিমকো গ্রুপ। ওই প্রতিষ্ঠানেই চাকরি করেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান এবং বিসিবির অন্যতম প্রভাবশালী পরিচালক ও বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের প্রধান ইসমাইল হায়দার মল্লিক। এবার তাই লটারির অবকাশ না রেখে তারা আগেভাগেই সাকিব আল হাসানকে দলে ভিড়িয়ে নিয়েছে এবং অন্য তারকা ক্রিকেটারদেরও যে যাঁর পছন্দমতো দলে বেছে নেওয়ার সুযোগ করে দিয়েছে।

মল্লিক অবশ্য এবার ‘এ প্লাস’ ক্যাটাগরিতে থাকা সাকিব, তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদ উল্লাহ, মাশরাফি বিন মর্তুজা, সৌম্য সরকার ও সাব্বির রহমানদের দল আগেই ঠিক হয়ে যাওয়ার পেছনে  খেলোয়াড়দেরই চাহিদার কথা বললেন এর ব্যাখ্যায়, ‘মাশরাফির নেতৃত্বে পাঁচ ক্রিকেটার এসে ওদের পছন্দমতো দল বেছে নেওয়ার স্বাধীনতা চেয়েছিল, যাতে ওরা নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে বাড়তি টাকা দলগুলোর কাছ থেকে নিতে পারে।’

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/এমএইচ

উপরে