আপডেট : ২৭ অক্টোবর, ২০১৬ ১৮:১৬

সাইফুলের পর এবার ভণ্ড কবিরাজের গ্রেপ্তার চায় পার্বতীপুরবাসী

বিডিটাইমস ডেস্ক
সাইফুলের পর এবার ভণ্ড কবিরাজের গ্রেপ্তার চায় পার্বতীপুরবাসী

দিনাজপুরের পার্বতীপুরে শিশু ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামী সাইফুল ইসলাম ওরফে কালা সাইফুলের আজ বৃহস্পতিবার ৭ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর হয়েছে।

আদালত সূত্র জানায়, পার্বতীপুরের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কৃষ্ণ কমল রায়ের আদালতে পার্বতীপুর জিআর ২৮৭/১৬ নং মামলার শুনানি অনুষ্ঠিত হয় বৃহস্পতিবার। পুলিশ এ মামলার প্রধান আসামীর ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন। শুনানি শেষে বিজ্ঞ ম্যাজিস্ট্রেট কৃষ্ণ কুমার রায় ৭ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। এসময় রাষ্ট্রপক্ষে এ্যাডভোকেট বরকত, সলিমুল্লাহ সেলিম ও এ্যাডভোকেট ওমর ফারুক শুনানিতে অংশ গ্রহন করেন। আসামী পক্ষে কোন উকিল অংশ নেননি বলে আদালত সূত্র জানায়।

এদিকে, মামলার প্রধান আসামী সাইফুল ইসলাম ওরফে কালা সাইফুলের দ্রুত বিচার আদালতে বিচার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানের দাবিতে আজ বৃহস্পতিবারও শতশত মানুষ বিক্ষোভ মিছিল করেছে। বিক্ষুব্ধ গ্রামবাসী ধর্ষকের সহযোগী ভণ্ড কবিরাজ আফজাল হোসেনকে দ্রুত গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছে বিক্ষোভ মিছিল থেকে।

কথিত কবিরাজ আফজাল হোসেনের স্ত্রী মোছাঃ রেহানা খাতুন (৩৮) এ প্রতিনিধিকে বলেন, আফজাল হোসেন আসলে কবিরাজ না। ৫/৬ বছর ধরে সে এলাকার বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত মানুষজনকে পানি পোড়া, তেল পড়া দিয়ে আসছে। এতে মানুষজন খুশি হয়ে ১০/২০টাকা করে বখশিস দেয় বলে রেহানা উল্লেখ করেন।

তিনি বলেন, ঘটনার দিন তার মেয়েসহ ল্যাম্ব হাসপাতালে অবস্থান করছিলেন। তবে সে শুনেছে, সাইফুল ইসলাম ওরফে কালা সাইফুল  ভিক্টিমের বাবাকে নিয়ে তার স্বামীর কাছে এসেছিলো। ভিক্টিমের বাবা সে সময় তার স্বামী আফজাল হোসেনের পা ধরে কান্নাকাটি করে তার মেয়ের সন্ধান বের করে দিতে অনুরোধ করেছিলো।

ধর্ষিতা শিশুর দাদা বলেন, সুবলকে ধর্ষক সাইফুল ইসলাম কবিরাজর আফজাল হোসেনের কাছে নিয়ে গিয়েছিলো। সেখানে সাইফুল গণাপড়া করে শিশুটির সন্ধান দিতে বলেছিলো। এসময় ভণ্ড কবিরাজ আফজাল হোসেন বাদীয়াকে সুবল দাস ৫০১টাকা নজরানা দিয়েছিলো বলে অনিল চন্দ্র দাস উল্লেখ করেন। সাইফুল তার অপকর্ম ঢাকার জন্য ভণ্ড কবিরাজের শরণাপন্ন হয়। তাকে ম্যানেজ করে ভিক্টিমের বাবাকে সেখানে নিয়ে যায় বলে তিনি উল্লেখ করেন।

এদিকে, আজ বৃহস্পতিবার বেলা ৩টার দিকে পার্বতীপুর উপজেলার রামপুর ইউনিয়নের জমির হাট এলাকার তকেয়াপাড়া গ্রামে নারী-পুরুষ শিশু সর্বস্তরের মানুষ মৃত জাফর উদ্দিন বাদীয়ার ছেলে আফজাল হোসেন বাদীয়া গত ৫/৬ বছর ধরে কবিরাজি চিকিৎসার নামে মানুষ জনের সাথে প্রতারনা করে অর্থ হাতিয়ে নিয়ে আসছে বলে অভিযোগ করেন। গ্রাম থেকে ফিরে আসার সময় বিকেল ৪টার দিকে গ্রামের নারী-পুরুষ শিশুরা ভণ্ড কবিরাজের গ্রেপ্তার ও ধর্ষক সাইফুলের ফাঁসির দাবি জানিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করছিল।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আরকে

উপরে