আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ১৮:১১

লালপুরে ইউএনও’র হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা পেল ৪র্থ শ্রেণীর ছাত্রী

লালপুর (নাটোর) প্রতিনিধি
লালপুরে ইউএনও’র হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা পেল ৪র্থ শ্রেণীর ছাত্রী

নাটোরের লালপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে উপজেলার মাঝগ্রাম ধনুরমোড় এবতেদায়ী মাদ্রাসার ৪র্থ শ্রেণির ছাত্রী সুমা খাতুন (১১)।

এ ঘটনায় শনিবার মেয়ের বাবা শাহাদত হোসেন, বরের চাচাত দুলাভাই মুক্তার হোসেন (২৫) ও বরযাত্রি আবু তাহের শেখকে (৬৫) ১ মাস করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার নজরুল ইসলামের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

জানা গেছে, শুক্রবার টাঙ্গাইল জেলার ভূঁয়াপুর উপজেলার বামনহাটা গ্রামের হিকেম আলীর ছেলে নূর হোসেন (২০) তার চাচাতো দুলাভাই মুক্তার হোসেন সহ ৮/৯ জন বরযাত্রী নিয়ে লালপুর উপজেলার মাঝগ্রাম পশ্চিমপাড়া গ্রামের শাহাদত হোসেনের ৪র্থ শ্রেণি পড়ুয়া সুমা খাতুনকে বিয়ের জন্য তার বাড়িতে আসে। প্রতিবেশীরা টের পেয়ে বিষয়টি লালপুর উপজেলা নির্বাহী আফিসার নজরুল ইসলামকে জানান। তিনি স্থানীয় দুয়ারিয়া ইউপি চেয়ারম্যান নূরুল হোসেন লাভলুর সহযোগীতায় বরের দুলাভাই মুক্তার হোসেন, বরযাত্রী আবু তাহের শেখ, মেয়ে সুমি খাতুন ও তার বাবা শাহাদত হোসেনকে উপজেলা পরিষদে নিয়ে আসেন। এসময় বর নূর হোসেনসহ অন্যরা পালিয়ে যায়।

সুমি খাতুনকে তার চাচা সাধু শেখ ও স্থানীয় ইউপি সদস্য ইকরামুল ইসলামের জিম্মায় রাখা হয়। 

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আরকে

উপরে