আপডেট : ১৫ মে, ২০১৬ ১৯:২৮

প্রধান শিক্ষকের কাছে ধর্ষণের স্বীকার হলেন সহকারী শিক্ষিকা

বিডিটাইমস ডেস্ক
প্রধান শিক্ষকের কাছে ধর্ষণের স্বীকার হলেন সহকারী শিক্ষিকা

নিবন্ধন পরীক্ষা দিতে এসে মেহেরপুরের মুজিবনগর আম্রকানন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের কাছে ধর্ষণের স্বীকার হয়েছেন একই বিদ্যালয়ের খণ্ডকালীন খৃষ্টান ধর্মীয় শিক্ষিকা।

শুক্রবার সকালে কুষ্টিয়ার একটি হোটেলে ধর্ষণের এ ঘটনা ঘটে। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের জন্য পরীক্ষার্থী ঐ স্কুল শিক্ষিকা পরীক্ষা হলে না গিয়ে কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হন। এদিকে ধর্ষক প্রধান শিক্ষক শরিফুল ইসলাকেম কুষ্টিয়া থেকেই পালিয়েছেন। ধর্ষক শরিফুল ইসলাম ভবরপাড়া গ্রামের রহমান মোল্লার ওরফে ন্যাড়া মোল্লার ছেলে। 

ধর্ষিতার পরিবারের সদস্যরা জানান, মেহেরপুর সরকারি মহিলা কলেজে সম্মান তৃতীয় বর্ষে পড়ার সময় মুজিবনগর আম্রকানন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে খন্ডকালীন ধর্মীয় শিক্ষক (খৃষ্টান) হিসেবে নিয়োগ লাভ করেন। পরবর্তীতে তিনি অনার্স শেষে মাষ্টার্স পড়ছেন। নিবন্ধন পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ ছাড়ায় ৩ বছর চাকুরী করেন। চলতি বছরের শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় অংশ গ্রহনের জন্য বৃহস্পতিবার তার বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শরিফুল ইসলামের সাথে কুষ্টিয়া যান এবং সেখানে একটি হোটেলের আলাদা আলাদা রুমে রাত্রি যাপন করেন।

সকালে পরীক্ষা অংশ নিতে যাওয়ার প্রস্তুতি গ্রহণকালে প্রধান শিক্ষক তার রুমে প্রবেশ করে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোরপূর্বক ধর্ষণ করেন। ওই সময় রক্তক্ষরণ হলে তিনি পরীক্ষা হলে না গিয়ে কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হন। এদিকে লম্পট শিক্ষক ওই ঘটনার পর হোটেল থেকে গা ঢাকা দেন। বর্তমানে তিনি পলাতক রয়েছেন।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আরকে  

উপরে