আপডেট : ১১ মে, ২০১৬ ১৫:২৪

ইউএনও'র ওপর হামলাকারী আ'লীগ নেতার জামিন নামঞ্জুর

অনলাইন ডেস্ক
ইউএনও'র ওপর হামলাকারী আ'লীগ নেতার জামিন নামঞ্জুর

ফেনীর পরশুরাম উপজেলার নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) এএইচএম রাকিব হায়দারের ওপর হামলার ঘটনায় প্রধান আসামি জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি খাইরুল বাশার তপনসহ দুই জনের জামিন নামঞ্জুর করেছেন আদালত।

এ মামলার অপর আসামি হলেন- চিথলীয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি চেয়ারম্যান জসিমউদ্দিন বুইজ্জা।

বুধবার দুপুর ১২টার দিকে তারা ফেনী জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট রাজেশ চৌধরী আদালতে হাজির হয়ে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন। পরে আদালত শুনানি শেষে তাদের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

এদিকে এ ঘটনায় পরশুরাম থানার ওসি আবুল কাশেম চৌধুরী ওই দুই আওয়ামী লীগ নেতার  পাঁচ দিনের রিমান্ড চায়। পরে বিচারক রিমান্ড নামঞ্জুর করে জেল গেটে তাদের জিঞ্জাসাবাদের আদেশ দেন।

৬ মে ফেনীর পরশুরাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এইচএম রাকিব হায়দারকে (৪০) জেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা প্রকাশ্যে কিল-ঘুষি মেরে আহত করে। রাকিব হায়দার ফেনী সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

ওই দিন সকালে পরশুরামের বিলোনিয়া স্থলবন্দর পরিদর্শনে যান নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান। মন্ত্রীকে অভ্যর্থনা জানাতে ইউএনও রাকিব হায়দার ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা চিতলিয়ার শলিয়ায় হেলিপ্যাডের কাছে অবস্থান করেন। এ সময় জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি খায়রুল বাশার তপন ইউএনওকে ডাকলে তিনি সাড়া না দেয়ার অভিযোগে এলোপাতাড়ি কিল-ঘুষি মারতে শুরু করেন।

ঘটনাস্থলে থাকা একজন এসআই নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, তপন ইউএনওকে প্রথমে কিল-ঘুষি মারতে শুরু করেন। এরপর তার সঙ্গে যোগ দেন উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান কামাল মজুমদার। তিনি ইউএনওর শার্টের কলার ধরে মারতে শুরু করেন। এরপর তাদের দুজনের সঙ্গে আরও ১০-১২ জন নেতাকর্মী যোগ দিয়ে ইউএনওকে মারতে থাকেন। পরে পুলিশ ও উপস্থিতরা গিয়ে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের থামান। মারধরে ইউএনও অজ্ঞান হয়ে পড়েন। উপজেলার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান।

ইউএনও রাকিব হায়দারের মাথায় গুরুতর আঘাত লেগেছে বলে জানিয়েছেন পরশুরাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক হাবিবুল করিম। এরপর ইউএনওকে নেয়া হয় ফেনী সদর হাসপাতালে।

 

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/এমএইচ

উপরে