আপডেট : ৭ মে, ২০১৬ ১১:২৭

নরসিংদীতে নির্বাচনী সংঘর্ষে আহত ২০

বিডিটাইমস ডেস্ক
নরসিংদীতে নির্বাচনী সংঘর্ষে আহত ২০

নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলায় ৪র্থ ধাপে শুরু হওয়া নির্বাচনে চারটি কেন্দ্রে জাল ভোট দেয়াকে কেন্দ্র করে ককটেল বিস্ফোরণ, গুলি বর্ষণ ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এসময় ২০ জন আহত হয়েছেন।

জানা যায়, বেলা ১০টার দিকে উপজেলার মির্জাপুর ও শ্রীনগর রংপুর কেন্দ্রে সংঘর্ষ বাধে। এসময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ গুলি চালায়। মূলত জাল ভোট দেয়াকে কেন্দ্র করে শ্রীনগর রংপুর কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ প্রার্থী ও সতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। এতে টেটাবিদ্ধ হয়ে ৫ জন আহত হন।

অপরদিকে, সরকার দলীয় প্রার্থী তাজুল ইসলামের সমর্থকরা নীলক্ষা ইউনিয়নের হরিপুর কেন্দ্র দখল করে জাল ভোট ও কেন্দ্র দখলের সময় তাদের বাধা দিলে দুই পক্ষের সংঘর্ষ হয়। এসময় ১৫ জন আহত হন।    

এছাড়াও চরসুবদি ইউনিয়নের মেহেরনগর ভোট কেন্দ্রে দু`পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ৪ রাউন্ড ফাঁকা গুলি নিক্ষেপ করে পুলিশ।

উল্লেখ্য, নরসিংদীতে রায়পুরা উপজেলার ২৪টি ইউনিয়নের ২৩টি ইউনিয়ন পরিষদে ৪র্থ দফায় নির্বাচন শুরু হয়েছে। সকাল ৮টা থেকে উপজেলার ২৩টি ইউনিয়নে ভোট কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। উৎসব মুখর পরিবেশে সকাল থেকেই নারী-পুরুষ সারিবদ্ধভাবে লাইনে দাঁড়িয়ে তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করছেন।

এদিকে, কোনো প্রার্থী না থাকায় রায়পুরার রাধানগর ও চান্দেরকান্দি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ প্রার্থী আব্দুস সাদেক ও খোরশেদ আলম বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। এছাড়া আইনি জটিলতার কারণে চাঁনপুর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন ৩ মাসের জন্য স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন।

নির্বাচনকে ঘিরে ৩ স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। স্ট্রাইকিং ফোর্স, মোবাইল টিমের পাশাপাশি পুলিশ, র্যা ব ও আনসার সদস্যসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত করার জন্য দায়িত্ব পালন করছেন।

জেডএম

উপরে