আপডেট : ১৬ মার্চ, ২০১৬ ১৫:২৫

বায়োমেট্রিক সিম নিবন্ধন নিয়ে মিথ্যা প্রচারণা চালাচ্ছে

বিডিটাইমস ডেস্ক
বায়োমেট্রিক সিম নিবন্ধন নিয়ে মিথ্যা প্রচারণা চালাচ্ছে

ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেছেন, অবৈধ ভিওআইপি ব্যবসার সঙ্গে জড়িত এবং চাঁদাবাজরা মিলিতভাবে বায়োমেট্রিক সিম নিবন্ধন নিয়ে মিথ্যা প্রচারণা চালাচ্ছে। ইতিমধ্যে প্রায় ৪০ শতাংশ সিমের পুন: নিবন্ধন শেষ হয়েছে দাবি করে সরকারের বেঁধে দেয়া সময়ের মধ্যে সকল সিম পুন: নিবন্ধন শেষ করতে মোবাইল অপারেটরদের নির্দেশ দিয়েছেন প্রতিমন্ত্রী।

বুধবার সকালে সচিবালয়ে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সিম নিবন্ধন নিয়ে মিথ্যা প্রচারণা, প্রতিবন্ধকতা, হাইকোর্টে মামলা এবং নিবন্ধনের সর্বশেষ অবস্থা নিয়ে আলোচনার জন্য মোবাইল অপারেটরদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রীর তারানা হালিম।

বৈঠকে মোবাইল অপারেটর কোম্পানীর শীর্ষ কর্মকর্তারা ছাড়াও এতে অংশ নেন এনআইডি,বিটিআরসি,স্বরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার কর্মকর্তারা। তারা অভিযোগ করেন, একটি চক্র, আঙ্গুলের ছাপ সংরক্ষণ নিয়ে মিথ্যা প্রচারণা চালাচ্ছে।

এই সকল মিথ্যা প্রচারণায় কান না দেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, এ পর্যন্ত প্রায় ৪০ ভাগ সিমের পুন:রেজিষ্ট্রেশন শেষ হয়েছে।

পরে ভেরিফিকেশনের জন্য বাংলালিংকের বায়োমেট্রিক ডিভাইস ব্যবহারের জন্য টেলিটকের সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

গতবছরের ২১ অক্টোবর প্রধানমন্ত্রীর তথ্য-প্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় নিজের নামে একটি সিমের নিবন্ধনের মাধ্যমে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সিম রেজিস্ট্রেশন কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। ১ নভেম্বর থেকে মোবাইল অপারেটরগুলো পরীক্ষামূলকভাবে এ কার্যক্রম শুরু করে। চলতি বছরের এপ্রিল পর্যন্ত সিম নিবন্ধন করার শেষ সুযোগ, এপ্রিলের পরে তা আর সচল থাকবে না।    

বিটিআরসি সূত্রমতে চলতি বছরের জানুয়ারির শেষ নাগাদ বাংলাদেশের মোট মোবাইল ফোন গ্রাহক সংখ্যা ১৩ কোটি ১৯ লাখ ৫৬ হাজার।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জেডএম

 

উপরে