আপডেট : ৩১ জানুয়ারী, ২০১৬ ২০:১০

ফেসবুকে ব্লক হবার কারণগুলো জেনে নিন

বিডিটাইমস ডেস্ক
ফেসবুকে ব্লক হবার কারণগুলো জেনে নিন

হুট করেই দেখছেন কাউকে রিকোয়েস্ট পাঠাতে পারছেন না, কোনো কমেন্ট বা ম্যাসেজও পাঠাতে পারছেন না, এমনকি কোথাও কোনো পোস্টও করতে পারছেন না। তারমানে ফেসবুক নির্দিষ্ট সময়ের জন্য আপনাকে ‘ব্লক’ করেছে।

তাই জেনে নিন ফেসবুকের নতুন নীতিমালায় ব্লক হবার কারণগুলো:

১. কমেন্টে জাতিগত, লিঙ্গগত বৈষম্য বা গালাগাল ব্যবহার

খুব সাবধানে কমেন্ট করবেন। কমেন্ট নিয়ে রিপোর্ট হলে ফেসবুক কখনো জাতিগত, লিঙ্গগত বৈষম্যযুক্ত কমেন্ট বরদাস্ত করে না। ধর্মীয় ভাবাবেগে সুড়সুড়ি দেয়া কমেন্টের ক্ষেত্রেও কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হয়। তাই কমেন্ট করার সময় এ ব্যাপারে খেয়াল রাখুন।

২. বন্ধুচাই

সারাদিন ফেসবুকের দোকান খুলে বসে থাকেন। কিন্তু বন্ধু বা বান্ধবী বাড়ছে না। তাই এক দিন যাকে পারলেন একধারসে ফ্রেন্ড রিক্যুয়েস্ট পাঠিয়ে দিলেন। ব্যস, আর সুন্দরভাবে আপনার অ্যাকাউন্টটি ব্লক করে দেওয়া হল। এক দিনে নির্দিষ্ট সংখ্যক মানুষজনকেই আপনি ফ্রেন্ড রিক্যুয়েস্ট পাঠাতে পারেন। তা অতিক্রম করলে ব্যবস্থা নেয় ফেসবুক।

৩. একপোস্ট বারবার

একবার পোস্ট করলেন। তা তেমনভাবে কেউ দেখলেন না। ফের তা পোস্ট করলেন। এমন ভাবে দিনের মধ্যে পঞ্চাশবার একই পোস্ট শেয়ার করলে আপনি ব্লক হয়ে যেতে পারেন। কেন? আসলে ফেসবুক একই মেসেজ বার বার দেখলে তা স্প্যাম ভাবে। তাই আপনাকে ব্লক করতে পারে। কোনো নির্দিষ্ট পেজে গিয়েও যদি একই মেসেজ বার বার পোস্ট করেন, তা হলেও একই বিধান রয়েছে।

৪. লাইকের জন্য পাগল

যে কোনো পোস্টে অন্তত ৫০০ লাইক, ২০টা কমেন্ট না হলে মন ভরছে না। সোজা রাস্তায় না গিয়ে বাঁকা রাস্তায় চেষ্টা করলেন। এমন অনেক পেজ আছে যার মাধ্যমে লাইক কেনা যায় বা বাড়ানো যায়। সেটা করে সকলকে চমকে দিলেন। তার সঙ্গে আপনিও চমকে যেতে পারেন। প্রথমে শুধু ওয়ার্নিং দিয়ে ছেড়ে দেয়া হবে। কিন্তু একই ভুল বার বার করলে আপনার কপালে ব্লক ‘নিশ্চিত’।

উপরে