আপডেট : ১৭ জানুয়ারী, ২০১৬ ১৮:২৮

বিমান বিধ্বস্ত হলেও অক্ষত থাকবে যাত্রীরা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
বিমান বিধ্বস্ত হলেও অক্ষত থাকবে যাত্রীরা

কোনো দুর্ঘটনায় বিমান বিধ্বস্ত হলে যাত্রীদের বাঁচানোর একটি ধারণা প্রকাশ করেছেন রাশিয়ার বিজ্ঞানী তাতারেঙ্কো ভ্লাদিমির নিকেলোভিচ। এ নিয়ে ইউটিউবে তিনি একটি ভিডিও প্রকাশ করেন।

ভিডিওটিতে তিনি একটি বিমানের যাত্রী অংশের কেবিন মধ্য আকাশে উড়ার সময় এবং অবতরণের সময় যে কোনো জরুরি অবস্থায় ককপিট থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে কিভাবে নিরাপদে অবতরণ করতে পারে তা দেখিয়েছেন। কেবিনটি বিচ্ছিন্ন হওয়ার পরে প্যারাসুটের সহায়তায় নিরাপদে ভূমিতে অথবা পানিতে অবতরণ করতে পারবে।

দি ইন্ডিপেন্ডেন্ট বরাতে জানা যায়, প্রায় তিনবছর ধরে বিমানের নিরাপত্তামূলক এই প্রজেক্টে তিনি কাজ করছেন।

তাতারেঙ্কো বলেন, ‘কেবিনটি জরুরি অবস্থায় বিচ্ছিন্ন হবে। যাত্রীদের লাগেজগুলো থাকবে কেবিনের নিচের অংশে, যাতে সেগুলোও নিরাপদ থাকতে পারে।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমি ৯৫ ভাগ নিশ্চিত যদি এই প্রযুক্তি বিমানগুলোতে যুক্ত হয় তবে যাত্রীরা নিরাপত্তার খাতিরে আরো বেশি পরিমাণ অর্থ দিয়ে হলেও এসব বিমানের টিকেট ক্রয় করবে।’

এখন পর্যন্ত সবাই ধারণাটির সাথে একমত হতে পারছেন না। অনেকেই এই প্রযুক্তি কতটা খরচ সাশ্রয়ী, বিমানের গঠনের সাথে উপযোগী এবং কেবিন বিচ্ছিন্ন হওয়ার পরে পাইলটদের অবস্থা কি হবে তা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন।

যদিও এটিই বিমান থেকে কেবিন বিচ্ছিন্নের একমাত্র প্রযুক্তি নয়। ২০১৩ সালে ফরাসি বিমান নির্মাতা প্রতিষ্ঠান এয়ারবাসও এমন একটি প্রযুক্তির পেটেন্টের মালিক হয়েছে।

আপাতদৃষ্টিতে এটাকে সায়েন্স ফিকশন মনে হলেও এয়ারবাসের মত প্রতিষ্ঠানের এ ধরনের প্রযুক্তি নিয়ে ভাবনাই বলে দিচ্ছে যে বিষয়টি নিয়ে গুরুত্বের সাথে ভাবা হচ্ছে।

 

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জেডএম

উপরে