আপডেট : ৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৩:৪৮

রাগে নিজের র‍্যাকেটটাই ভেঙ্গে ফেললেন সেরেনা

অনলাইন ডেস্ক
রাগে নিজের র‍্যাকেটটাই ভেঙ্গে ফেললেন সেরেনা

সেরেনা উইলিয়ামসকে ৬-২, ৬-৪ সেটে হারিয়ে ইউএস ওপেন জিতলেন জাপানের নাওমি ওসাকা। তবে সবকিছুকে ছাপিয়ে বড় হয়ে থাকল রেফারি কার্লোস রামোসের সঙ্গে সেরেনার তর্কযুদ্ধ। যা নিয়েই এখন তোলপাড় টেনিস দুনিয়া। 

ঘটনার সূত্রপাত দ্বিতীয় সেটে। সেরেনা তখন ৪-৩ গেমে পিছিয়ে। আম্পায়ার কার্লোস রামোস হঠাৎই লক্ষ্য করেন সেরেনার কোচ প্যাট্রিক মৌরাতাগ্লু তাঁকে প্লেয়ার বক্স থেকে ইশারা করে কোনো কিছু বোঝাচ্ছেন। তখনই রেফারি সেরেনার বিপক্ষে গ্যালারি থেকে ইশারায় কোচের পরামর্শ নেওয়ার অভিযোগ তোলেন। অভিযোগটা অমূলক নয়, কারণ পরে সেরেনার কোচ প্যাট্রিক মোরাতোগলু পরামর্শ দেওয়ার কথা স্বীকার করেন। একই কাজ করেছেন ওসাকার কোচ সাশা বাজিনও। তাছাড়া ডব্লিউটিএ ট্যুরে কোচেরা বাইরে থেকে পরামর্শ দিতে পারলেও গ্র্যান্ডস্লামে এই নিয়ম নেই।

এরপরই ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন সেরেনা। চেয়ার আম্পায়ারের কাছে গিয়ে বলেন, ‘জেতার জন্য আমি কখনও প্রতারণার আশ্রয় নিই না। তার চেয়ে হেরে যাওয়াই আমার কাছে শ্রেয়।‘ কিছুক্ষণ পর ফের খেলা শুরু হয়। সেরেনা তখন ২-১ এ এগিয়ে। সেই সময়ে ফের চেয়ার আম্পায়ারের কাছে গিয়ে মসৃণ ভাবে খেলা পরিচালনার কথা বলেন তিনি। আরও এগিয়ে সেরেনার পক্ষে ফল দাঁড়ায় ৩-১। কিন্তু কিছুক্ষণ পরেই সেরেনার পর পর দু’টি ডাবল ফল্ট এবং ব্যাক হ্যান্ডের একটি শট নেটে আটকে যাওয়ায় ম্যাচে ফেরেন ওসাকা। এবং মেজাজ হারান সেরেনা। নিজের র‌্যাকেট মাঠে ছুড়ে দেন। ভেঙে যায় র‌্যাকেটটি। তার জেরে পয়েন্ট পেনাল্টি হয় তাঁর।

ওসাকা ৪-৩ লিড নিয়ে নেওয়ার পর ফের চেয়ার আম্পায়ার র‌্যামোসের সঙ্গে ফের সেরেনা বাদানুবাদ জুড়ে দেন। যার কারণে আবারও পেনাল্টি দেন রামোস। এই সময় সেরেনাকে কোর্টের মধ্যেই কাঁদতেও দেখা যায়। রেফারির সকল অভিযোগ অস্বীকার করেন এই টেনিস তারকা। পর্তুগিজ এই আম্পায়ারকে বলেছেন, ‘তুমি মিথ্যেবাদী। জীবনে বেঁচে থাকতে আর কখনো আমার ম্যাচে আম্পায়ারিং করতে পারবে না।‘ এতে আবারও আচরণবিধি ভঙ্গের অভিযোগে পরের গেমে আবারও সেরেনার পয়েন্ট কর্তন করেন রামোস। একপর্যায়ে কোর্টেও ঢুকতেও আপত্তি জানিয়েছিলেন সেরেনা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত কোর্টে ফিরে ওসাকার কাছে হার মানলেও রামোসের কাছে মানেননি।

উপরে