আপডেট : ১০ মার্চ, ২০১৬ ১৭:১২

শারাপোভার শাস্তি চান নাদাল

স্পোর্টস ডেস্ক
শারাপোভার শাস্তি চান নাদাল

ড্রাগ কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে বেশ ভালোই বিপাকে পড়েছেন মারিয়া শারাপোভা। নাইকি, পোরশের মতো প্রতিষ্ঠান এরই মধ্যে সব ধরনের চুক্তি বাতিল করেছে রাশিয়ার এই টেনিস তারকার সঙ্গে। শরীরে নিষিদ্ধ দ্রব্যের উপস্থিতি থাকায় এখন শাস্তির মুখোমুখিও হতে হবে শারাপোভাকে। অনেকেই শারাপোভার এই ‘অনিচ্ছাকৃত ভুলকে’ ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখার কথা বললেও স্প্যানিশ তারকা রাফায়েল নাদাল বলছেন ভিন্ন কথা। টেনিসকে কলঙ্কমুক্ত রাখার জন্য শারাপোভার শাস্তি পাওয়াই উচিত বলে মন্তব্য করেছেন ১৪টি গ্র্যান্ড স্লামজয়ী নাদাল।

সম্প্রতি টেনিস বিশ্বকে চমকে দিয়ে ড্রাগ পরীক্ষায় অনুত্তীর্ণ হওয়ার কথা স্বীকার করেছেন সাবেক নাম্বার ওয়ান মারিয়া শারাপোভা। গত জানুয়ারিতে অস্ট্রেলিয়ান ওপেন চলার সময়ই শারাপোভার শরীরে ধরা পড়েছিল নিষিদ্ধ ড্রাগ। ভুল স্বীকার করে সবার কাছে ক্ষমাও চেয়েছেন রাশিয়ার এই লাস্যময়ী তারকা। এখন একটা দৃষ্টান্ত গড়ার জন্য শারাপোভাকে শাস্তি দেওয়া উচিত বলে মনে করছেন নাদাল। তিনি বলেছেন, ‘এ ধরনের কিছু যে ঘটতে পারে তা কল্পনা করাও কঠিন। কিন্তু এমন ভুল হয়েই থাকে। শারাপোভার শাস্তি পাওয়া উচিত। শারাপোভা ইচ্ছে করে ব্যাপারটা ঘটাননি, এটাই আমি বিশ্বাস করতে চাই। কিন্তু এটা অবশ্যই গাফিলতি। আর সেটার মূল্য দেওয়া উচিত।’

আন্তর্জাতিক টেনিস ফেডারেশন জানিয়েছে, গত ২৬ জানুয়ারি অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের কোয়ার্টার ফাইনালের পর ড্রাগ পরীক্ষা উতরাতে ব্যর্থ হন শারাপোভা। প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল, শারাপোভার শরীরে ধরা পড়েছে মেলোডোনিয়ামের উপস্থিতি। মূলত ডায়াবেটিস ও শরীরের ম্যাগনেসিয়াম কমাতে এই মেলোডোনিয়াম গ্রহণ করা হয়। তবে চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে এই ঔষুধটি নিষিদ্ধ করেছে ওয়ার্ল্ড অ্যান্টি ডোপিং এজেন্সি (ডব্লিউএডিএ)।

ড্রাগ পরীক্ষায় অনুত্তীর্ণ হওয়ায় ১২ মার্চ থেকে প্রাথমিকভাবে নিষিদ্ধ হতে যাচ্ছেন শারাপোভা। রাশিয়ান এই তারকার আইনজীবী জানিয়েছেন, ইচ্ছাকৃতভাবে ড্রাগ সেবনের জন্য চার বছর এবং না জেনে করলে দুই বছর পর্যন্ত নিষেধাজ্ঞার বিধান রয়েছে।

 

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আইএম

 

উপরে