আপডেট : ৯ মার্চ, ২০১৬ ২০:৪০

ক্রীড়াজগতের পাঁচ ডোপিং স্ক্যান্ডেল

স্পোর্টস ডেস্ক
ক্রীড়াজগতের পাঁচ ডোপিং স্ক্যান্ডেল

আপনার প্রিয় ক্রীড়াবিদ কি কখনো ডোপ পরীক্ষায় ধরা পড়েছেন? ক্রীড়াজগতে মাঝেমাঝেই কিন্তু মাদক নেয়ার দায়ে নিষিদ্ধ হচ্ছেন ক্রীড়া তারকারা৷ চলুন জানা যাক, ক্রীড়াজগতের পাঁচ ডোপিং স্ক্যান্ডেলের কথা৷

মারিয়া শারাপোভা

রাশিয়ার টেনিস তারকা মারিয়া শারাপোভা স্বীকার করেছেন যো, এ বছরের শুরুতে অস্ট্রেলিয়ায় ডোপ পরীক্ষায় তিনি ‘পজেটিভ’ হয়েছিলেন৷ শারাপোভা গত দশ বছর ধরে একটি ওষুধ খেতেন, যা সম্প্রতি নিষিদ্ধ করেছে নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষ৷ এখন সেটা গ্রহণের দায়ে চার বছর পর্যন্ত নিষিদ্ধ হতে পারেন তিনি৷

অ্যালেক্স রোদ্রিগেজ

অ্যামেরিকার বেসবল খেলোয়াড় এলেক্স রোডরিগেজ পারফর্মেন্স-বর্ধক মাদক গ্রহণের দায়ে ২০১৪ সালে নিষিদ্ধ হন৷ তাঁর এই নিষেধাজ্ঞা সেদেশে ব্যাপক সাড়া ফেলেছিল৷

ল্যান্স আর্মস্ট্রং

২০১৩ সালে টেলিভিশন ব্যক্তিত্ব ওপ্রা উইনফ্রেকে দেয়া সাক্ষাৎকারে সাইক্লিংয়ের কিংবদন্তি ল্যান্স আর্মস্ট্রং পারফরম্যান্স ভালো করার জন্য মাদক নেয়ার কথা স্বীকার করেন৷ সাতবার ‘ট্যুর দ্য ফ্রঁস’ জেতা এই তারকার কাছ থেকে সব শিরোপা কেড়ে নেয়া হয়েছে ইতিমধ্যেই৷

ডিয়েগো মারাদোনা

বিশ্বের অন্যতম সেরা ফুটবলার ডিয়েগো মারাদোনাকে (বানানভেদে মারাডোনা বা ম্যারাডোনা) ১৯৯৪ সালের বিশ্বকাপ ফুটবল থেকে সরিয়ে দেয়া হয়েছিল, কেননা ডোপ পরীক্ষায় ‘পজেটিভ’ হয়েছিলেন তিনি৷ গোটা বিশ্বের ফুটবলভক্তদের জন্য সেই ঘটনা ছিল এক বড় ধাক্কা৷

বেন জনসন

ক্যানাডার স্প্রিন্টার বেন জনসন (বামে) ১৯৮৮ অলিম্পিকের ১০০ মিটার শিরোপা জয় করেন বিশ্বরেকর্ড গড়ে৷ কিন্তু স্টেরয়েড গ্রহণের দায়ে তাঁর সব অলিম্পিক খেতাব পরর্বতীতে কেড়ে নেয়া হয়৷

উপরে