আপডেট : ১৫ নভেম্বর, ২০১৮ ২০:২২

নয়াপল্টনে নাশকতা: বিএনপির ৩৮ নেতাকর্মী ৫ দিনের রিমান্ডে

অনলাইন ডেস্ক
নয়াপল্টনে নাশকতা: বিএনপির ৩৮ নেতাকর্মী ৫ দিনের রিমান্ডে

রাজধানীর নয়াপল্টনে নাশকতার অভিযোগে দায়ের করা পৃথক তিন মামলায় ৩৮ জনের পাঁচ দিনের রিমান্ড আবেদন মঞ্জুর করেছেন আদালত। বৃহস্পতিবার (১৫ নভেম্বর) সন্ধ্যা ৭টা ১৫ মিনিটে শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম সরাফুজ্জামান আনসারী এই আদেশ দেন।

আদালত এই পৃথক তিন মামলায় আটক অন্য ২৭ জনের রিমান্ডের আবেদন নামঞ্জুর করে জেল গেটে তাদের তিন দিন জিজ্ঞাসাবাদের আদেশ দেন। এদিন সন্ধ্যায় মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তারা বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ডের আবেদন করে আসামিদের আদালতে হাজির করেন।

এর আগে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে পুলিশের সঙ্গে দলটির নেতাকর্মীদের সংঘর্ষের ঘটনায় তিনটি মামলা করেছে পুলিশ।

গাড়ি ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ, রাস্তা অবরোধ, পুলিশকে মারধর ও সরকারি কাজে বাধার অভিযোগ এনে পুলিশ বাদী হয়ে পল্টন থানায় মামলা তিনটি করে। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার পর্যন্ত ৬৫ নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। এসব মামলায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসকে আসামি করা হয়েছে।

এদিকে বুধবার নয়াপল্টনে বিএনপির নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ ও ধাওয়া-পাল্টাধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পুলিশের গুলি, কাঁদানে গ্যাসের শেল ও লাঠিপেটায় বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন। নেতাকর্মীদের পাল্টা হামলায় বেশ কয়েকজন পুলিশ সদস্যও আহত হয়েছেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মনোনয়ন ফরম সংগ্রহকে কেন্দ্র করে বেলা সাড়ে ১১টার পর নয়াপল্টনের সামনের রাস্তা কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায়। একপর্যায়ে ওই সড়ক দিয়ে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। দুপুর ১টার দিকে পুলিশ সদস্যরা গিয়ে বিএনপির নেতাকর্মীদের রাস্তা ছেড়ে দিতে বলেন। এ সময় তাদের সঙ্গে পুলিশ সদস্যদের বাকবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে পুলিশ সদস্যরা বিএনপির নেতাকর্মীদের লাঠিপেটা করে ছত্রভঙ্গ করে দেয়।

তখন নেতাকর্মীরাও পুলিশের ওপর হামলা চালায়। তারা পুলিশের ওপর ইটপাটকেল নিক্ষেপ শুরু করে। শুরু হয় দুই পক্ষের সংঘর্ষ ও ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া। পুলিশ সাঁজোয়া যান থেকে বিএনপির নেতাকর্মীদের ওপর কাঁদানে গ্যাসের শেল ছুড়ে। মাঝেমধ্যে গুলির শব্দ শোনা যায়। এ সময় পুলিশের দু’টি গাড়ি ভাঙচুর করে আগুন ধরিয়ে দেয়।

এদিকে সংঘর্ষের ঘটনায় সরকারকেই দায়ী করেছে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেছেন, ‘সরকার নিজে এই পরিবেশটা নষ্ট করেছে।’

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

উপরে