আপডেট : ১০ অক্টোবর, ২০১৮ ০৯:৪৪

সেদিন বিএনপির যাঁরা প্রতিবাদ করেছিলেন

অনলাইন ডেস্ক
সেদিন বিএনপির যাঁরা প্রতিবাদ করেছিলেন

২০০৪ সালের ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার নৃশংস ঘটনা ঘটে। গোটা দেশবাসীই এই বর্বরতায় শোকে বিহ্বল হয়ে যায়। নিন্দা এবং ক্ষোভে ফেটে পড়ে। বিএনপি-জামাত জোট সরকার তখন ক্ষমতায় ছিল। তাই স্বাভাবিকভাবেই বিএনপি-জামাত জোট চেয়েছিল সত্যকে আড়াল করতে। ঘটনাকে অন্যখাতে প্রবাহিত করতে। সেই সময়ে সংসদে, রাজনীতির মাঠে বিএনপির অনেক নেতাই ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা নিয়ে আত্মপক্ষ সমর্থনের চেষ্টা করেছেন। অতি উৎসাহীদের মধ্যে কেউ কেউ এই ঘটনার জন্য আওয়ামী লীগকেও দায়ী করেছে। কিন্তু পর্দার আড়ালে, দলীয় ফোরামে অনেকেই এই ঘটনার জন্য তারেক জিয়া এবং তাঁর সাঙ্গপাঙ্গদের দায়ী করেছিলেন। এঁরা অনেকেই এখন বিএনপিতে আছেন। কেউ কেউ দলের সঙ্গে সম্পর্কহীন। কিন্তু সেই সময় তাঁরা যে আশঙ্কা করেছিলেন, আজ তা সত্য হিসেবেই আবির্ভূত হচ্ছে।

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার পর প্রথম তারেক জিয়ার সমালোচনা করেছিলেন সাদেক হোসেন খোকা। সে সময় তিনি ছিলেন ঢাকার মেয়র এবং মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে থাকা মন্ত্রী। ঘটনার পর তিনি নয়া পল্টনে দলীয় কার্যালয়ে যান। সেখানে গণমাধ্যমকর্মীদের সামনেই ‘তারেক জিয়া’কে গালমন্দ করেন। ২৭ আগস্ট দলের স্থায়ী কমিটির সভায় খোকা আপাতত তারেক জিয়াকে রাজনীতি থেকে দূরে রাখার পরামর্শ দেন বেগম জিয়াকে। ঐ সভায় তৎকালীন তথ্যমন্ত্রী তরিকুল ইসলাম বলেছিলেন, ‘২১ আগস্টের জন্য চরম মূল্য দিতে হবে বিএনপিকে।’ বিএনপির আরেক নেতা মোসাদ্দেক আলী ফালু বেগম জিয়াকে পরামর্শ দিয়েছিলেন, ‘কিছুদিনের জন্য তারেক জিয়াকে দেশের বাইরে পাঠিয়ে দেওয়ার।’ তিনিই ‘লুৎফুজ্জামান বাবরকে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়ারও প্রস্তাব দিয়েছিলেন।’ সেসময় প্রধানমন্ত্রীর মূখ্য সচিব ড. কামাল সিদ্দিকী ঘটনার অনুসন্ধান করে এই ঘটনার সঙ্গে তারেক জিয়ার সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ পেয়েছিলেন। এটা তিনি তৎকালীন প্রধানমন্ত্রীকেও জানিয়েছিলেন। ড. কামাল সিদ্দিকীর ঐ প্রতিবেদন বেগম জিয়া ছিঁড়ে ফেলার নির্দেশ দিয়েছিলেন।

২০০৭ সালের ওয়ান ইলেভেনের পর তৎকালীন বিএনপি মহাসচিব দৈনিক ইত্তেফাকের এক সাক্ষাৎকারে গ্রেনেড হামলার ঘটনায় তারেক জিয়ার সংশ্লিষ্টতা থাকার সম্ভাবনার কথা বলেছিলেন। প্রয়াত মান্নান ভুঁইয়া বলেছিলেন, ’তারেক জিয়ার কারণেই ঐ মামলার সুষ্ঠু তদন্ত করা সম্ভব হয়নি।’ মান্নান ভুঁইয়া, বিবিসি বাংলাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার ন্যায় বিচার করতে না পারা বিএনপি সরকারের অন্যতম ব্যর্থতা বলেও মন্তব্য করেছিলেন।

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার ঘটনার কিছুদিনের মধ্যেই বিএনপির প্রায় সব নেতাই জানতেন ঘটনার সঙ্গে তারেক জিয়া জড়িত। সবাই নীরবে এ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করতেন। কিন্তু কেউই তাঁর মুখ খুলতেন না।

আজ বিএনপির যাঁরা মামলা নিয়ে বিবৃতি, বক্তব্য দিচ্ছেন, তাঁরাও জানেন, সত্য কি!

উপরে