আপডেট : ১৯ আগস্ট, ২০১৮ ২০:১৮

নির্বাচনে বিএনপির নেতৃত্ব দেবে জোবায়দা-শর্মিলা?

অনলাইন ডেস্ক
নির্বাচনে বিএনপির নেতৃত্ব দেবে জোবায়দা-শর্মিলা?

আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির নেতৃত্বে দেবে বেগম জিয়ার দুই পুত্রবধূ। ‘আপনার একটি ভোট, বেগম খালেদা জিয়াকে মৃত্যুর হাত থেকে বাঁচাবে।’ এই আকুতি নিয়ে জোবায়দা এবং শর্মিলা বিএনপির নির্বাচনী প্রচারে নামবে। আগামী অক্টোবর থেকেই নির্বাচনী মাঠে নামছে বিএনপি। ঢাকায় এসে বিএনপির সিনিয়র নেতাদের কাছে এরকম পরিকল্পনার কথাই জানালেন প্রয়াত কোকোর স্ত্রী সৈয়দা শর্মিলা রহমান।

গত বৃহস্পতিবার শর্মিলা বাংলাদেশে এসেছেন। শনিবার তিনি বেগম খালেদা জিয়ার সঙ্গে কারাগারে সাক্ষাৎ করেন। শনিবার এবং রোববার সারাদিনই শর্মিলা সিঁথি বিএনপির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন। এসব সাক্ষাতে বেগম জিয়ার পুত্রবধূ নির্বাচনের প্রস্তুতি গ্রহণের জন্য নির্দেশ দিয়েছেন বলে একাধিক নেতা নিশ্চিত করেছেন।

অনেক নেতাই সিঁথিকে প্রশ্ন করেছেন, বেগম জিয়া জেলে থাকলে এবং তারেক জিয়াকে বিদেশে রেখে কীভাবে নির্বাচন করা সম্ভব। উত্তরে সিঁথি বলেন, ‘আমরা নির্বাচন প্রচারণায় থাকবো। নির্বাচন প্রচারণা নিয়ে আপনাদের ভাবতে হবে না।’

বিএনপির সূত্রগুলো বলছে, নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে শর্মিলা দেশে আসবেন। তারেক জিয়ার স্ত্রী ডা. জোবায়দারও দেশে ফেরার সম্ভাবনা রয়েছে। তাঁরা বন্দী খালেদা জিয়ার মুক্তির ম্যান্ডেট এর জন্য জনগণের কাছে ভোট চাইবেন। তবে এরা দুজন নির্বাচনে দাঁড়াবেন কি না সে সম্পর্কে নিশ্চিত তথ্য পাওয়া যায়নি। এদিকে, বিএনপির দায়িত্বশীল সূত্রগুলো বলছে, দলে কোন্দল এবং সম্ভাব্য ভাঙন ঠেকাতেই সিঁথিকে তারেক ঢাকায় পাঠিয়েছে।

নির্বাচন প্রশ্নে বিএনপিতে কোন্দল ক্রমশ বাড়ছে। বিএনপির তৃণমূলের অধিকাংশ নেতাই বেগম জিয়ার মুক্তি ছাড়া নির্বাচন নয় এরকম মনোভাব প্রকাশ করছে। কিন্তু তারেক জিয়া মনে করছেন, এবার নির্বাচন না করলে বিএনপি অস্তিত্বের সংকটে পড়বে। এই বক্তব্য তিনি দুমাস আগে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে জানিয়েছিলেন। কিন্তু বিএনপির অধিকাংশ নেতাই মহাসচিবের বক্তব্য বিশ্বাস করেননি। এমনকি নির্বাচনে যাওয়া সম্পর্কিত বেগম জিয়ার বার্তা মহাসচিব দলের সিনিয়র নেতাদের পড়ে শোনালে তাঁরাও সেটি বিশ্বাস করেননি। এনিয়ে দলে কোন্দল দানা বাঁধছিল। এই প্রেক্ষিতেই শর্মিলা রহমানকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

অন্য একটি সূত্র বলছে, তারেক জিয়ার কাছে খবর গেছে যে, বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নেতৃত্বে বিএনপির একটি অংশ অধ্যাপক বি. চৌধুরীর সঙ্গে যেতে পারে। গত কিছুদিন ধরে বি.চৌধুরীর সঙ্গে মির্জা ফখরুলের একাধিক সাক্ষাতের ঘটনা ঘটেছে। বিএনপি মহাসচিব যুক্তফ্রন্টে বিএনপিকে নেওয়ার চেষ্টা করছেন। কিন্তু তারেক জিয়া মোটেও বি. চৌধুরীর সঙ্গে জোটে আগ্রহী নন। বি.চৌধুরীকে তিনি বিশ্বাসও করেন না। তাই বিএনপি মহাসচিব যেন অধ্যাপক বদরুদ্দোজা চৌধুরীর ফাঁদে পা না দেন, সে কারণেও সিঁথিকে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে।

এ পর্যায়ে সৈয়দ শর্মিলা রহমান সিঁথি ঢাকায় ঈদ করবেন। ঈদের পর লন্ডনে ফেরত গিয়ে তিনি আবার অক্টোবরের শেষ নাগাদ দেশে ফিরবেন।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

উপরে