আপডেট : ১০ আগস্ট, ২০১৮ ১৭:১১

কেন হঠাৎ ছাত্রলীগের উদারতা ও কর্মতৎপরতা?

অনলাইন ডেস্ক
কেন হঠাৎ ছাত্রলীগের উদারতা ও কর্মতৎপরতা?

দিন কয়েক আগেই অভিযোগ উঠেছিল নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের ওপর হামলাকারীরা ছিল ছাত্রলীগের নেতা-কর্মী। যদিও এ অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন ছাত্রলীগসহ ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতারা। তবে এ নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা চলছে এখনও।

এরই মধ্যে বৃহস্পতিবার থেকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে একাধিক ছাত্রলীগ নেতার উদারতা ও কর্মতৎপরতা। ভাইরাল হওয়া একটি ছবিতে দেখা যায়, রিকশাচালককে পেছনে বসিয়ে রিকশা চালাচ্ছেন এক ছাত্রলীগ নেতা। জানা যায়, রিকশা চালানো ওই ছাত্রলীগ নেতার নাম নওশেদ সুজন। তিনি বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক।

বৃহস্পতিবার ফেসবুকে নিজের আইডি থেকে দেওয়া এক স্ট্যাটাসে নওশেদ তিনটি ছবি আপলোড করে ক্যাপশনে লেখেন, ‘আজ দুই বন্ধু পরিবাগ যাওয়ার সময় রিক্সাচালক অসুস্থ হয়ে পরার কারণে নিজে রিক্সা চালিয়ে গন্তব্যে ...........!’

দ্রুতই তার এই ছবি ছড়িয়ে পড়ে ফেসবুকে। তবে তার এমন কর্মকাণ্ডে প্রশংসা বাক্যের সঙ্গে এসেছে নানা রকম বিদ্রুপাত্মক মন্তব্যও। কেউ কেউ এটাকে সাজানো বলেও মন্তব্য করেছেন। এদিকে, ভাইরাল হওয়া আরেকটি ছবিতে দেখা যায় যায়, রাতে সড়কের গতিরোধকে সাদা রং করছেন তিন ছাত্রলীগ সদস্য।

একটি অনলাইন পোর্টালের খবর থেকে জানা যায়, ছবিতে তিনজনকে দেখা গেলেও সেখানে উপস্থিত ছিলেন চার ছাত্র। তারা হলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সদ্য সাবেক সহ সম্পাদক রুদ্র রাইয়ান খান, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হল ছাত্রলীগের সদ্য সাবেক সাহিত্য বিষয়ক সম্পাদক সাইমন সানি, এস এম হল ছাত্রলীগের রাফসান খান ফারিজ এবং জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের মিঠুন বাড়ৈ।

জানা যায়, শেখ হাসিনার উৎসাহে এবং ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীর নির্দেশনায় চার বন্ধু মিলে নিজেদের টিউশনির টাকায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকার সড়কে রং করছিলেন তারা।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/রাসেল

উপরে