আপডেট : ২৪ নভেম্বর, ২০১৭ ১৮:৩৯

শিবিরের ভয়ে ছাত্রলীগের ‘স্কুল পলিটিক্স’?

অনলাইন ডেস্ক
শিবিরের ভয়ে ছাত্রলীগের ‘স্কুল পলিটিক্স’?

মাধ্যমিক স্কুলে ছাত্রলীগের কমিটি গঠনের বিষয়ে মুখ খুলতে চাচ্ছেন না ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা। আওয়ামী লীগের ভাতৃপ্রতিম সংগঠন হলেও ছাত্রলীগের নিয়ন্ত্রণ থাকে আওয়ামী লীগের হাতেই, এটি রেওয়াজে পরিণত হয়েছে। যদিও ছাত্রলীগকে স্বতন্ত্র সংগঠন দাবি করে এ বিষয়ে মন্তব্য করতে রাজি হননি আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা।

মঙ্গলবার (২২ নভেম্বর) ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন মাধ্যমিক স্কুলে কমিটি করতে সাংগঠনিক ইউনিটকে নির্দেশ দিয়েছেন। এই দুই নেতার স্বাক্ষর করা বিজ্ঞপ্তিতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেওয়া হয়। এর পরপরই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্ন মহলে এ নিয়ে শুরু হয় বিতর্ক।

তবে সিদ্ধান্তটি নতুন কিছু নয় বলে মন্তব্য করেছেন সংগঠনের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক।

ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ বলেন, ‘এই নির্দেশ নতুন নয়। শুরুর দিক থেকেই স্কুল কমিটি রয়েছে ছাত্রলীগের।সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটিতে স্কুল সম্পাদক নামে একটি পদও রয়েছে।’

ছাত্রলীগ সভাপতি বলেন,‘স্কুলে কমিটি করার উদ্দেশ্য ছাত্রদের দিয়ে মিছিল, মিটিং ও রাজনৈতিক কার্যক্রম চালানো নয়। আমাদের উদ্দেশ্য মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও আদর্শে ছাত্রদের উদ্বুদ্ধ করা। বঙ্গবন্ধুর আদর্শ, রাজনৈতিক দর্শন ও রাজনৈতিকভাবে সচেতন করে তোলা।’

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, স্কুলে ছাত্রলীগের কমিটি দেওয়া হচ্ছে ভিন্ন একটি চিন্তা থেকে, সেটা হলো- বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী।এই রাজনৈতিক দলটি আপাতত নিষ্ক্রিয় থাকলেও দলের ছাত্র সংগঠন ছাত্রশিবির সারাদেশে স্কুলে স্কুলে তাদের সাংগঠনিক কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে। ছাত্রশিবির সারাদেশের স্কুলগুলোতে ব্যাপক তৎপর রয়েছে। তাদের এই তৎপরতা বন্ধ করতে ছাত্রলীগ স্কুল কমিটি নিয়ে ‘সিরিয়াস’ হওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়।

সূত্র জানায়, অন্য রাজনৈতিক দলের ছাত্র সংগঠনও স্কুল কমিটি নিয়ে ভেতরে ভেতরে কাজ শুরু করেছে। ফলে পিছিয়ে পড়ার সম্ভাবনা থেকে ছাত্রলীগও এই কার্যক্রম শুরু করতে সংশ্লিষ্ট ইউনিটগুলোকে নির্দেশ দিয়েছে।

সূত্র আরও জানায়, স্কুল কমিটি আগে থেকে থাকলেও এর কার্যক্রম নিষ্ক্রিয় ছিল। এই নিষ্ক্রিয়তার সুযোগে শিবির তাদের কার্যক্রম শুরু করে। ফলে শিবিরকে ঠেকাতে স্কুল কমিটি গঠনের নির্দেশ দিয়েছে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব।

ছাত্রলীগের সভাপতি সোহাগ বলেন, ‘আমাদের কাছে তথ্য আছে যে, সারাদেশে স্কুলগুলোতে ছাত্রশিবির সক্রিয় হয়ে উঠেছে। জঙ্গিদের টার্গেটও স্কুলগুলোর ছাত্ররা। এ অবস্থায় স্কুলগুলোর ছাত্র-ছাত্রীদের মননে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও আদর্শ গেঁথে দিতে পারলে, সেখান থেকে যে নতুন প্রজন্ম গড়ে উঠবে, তা সম্পদ হয়েই গড়ে উঠবে।’

ছাত্রলীগের স্কুল কমিটির উদ্যোগ নিয়ে কথা বলতে রাজি হননি সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরও। তিনি বলেন, ‘এ ব্যাপারে আমি কেন কথা বলবো?’

বর্তমান সময়ে স্কুলে ছাত্রলীগের কমিটি কতটা প্রয়োজনীয় জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ড. আবদুল রাজ্জাক বলেন, ‘এই সম্পর্কে আমার কোনও বক্তব্য নাই।’ তিনি বলেন, ‘ছাত্রলীগ আওয়ামী লীগের অঙ্গ বা সহযোগী সংগঠন নয়। বরং ভাতৃপ্রতিম সংগঠন। ফলে সংগঠনটি স্বতন্ত্র। এখানে আওয়ামী লীগের হস্তক্ষেপ শোভনীয় নয়।’ 

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

উপরে