আপডেট : ১৯ আগস্ট, ২০১৭ ১৭:০০

‘রায় কে লিখে দিয়েছে জানি, কিন্তু বলব না’

অনলাইন ডেস্ক
‘রায় কে লিখে দিয়েছে জানি, কিন্তু বলব না’

সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিল করে আপিল বিভাগের দেওয়া রায় কে লিখে দিয়েছেন তা জানেন বলে দাবি করেছেন আওয়ামী লীগ থেকে বহিষ্কৃত সাবেক মন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী।

শনিবার (১৯ আগস্ট) বিকেলে রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ের ওপর লিখিত সমালোচনা পাঠ শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এই দাবি করেন।

আওয়ামী লীগের সাবেক এই নেতা বলেন, রায় কে লিখে দিয়েছে জানি কিন্তু বলব না। সব কথা বলা যায় না।

আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী বলেছেন, ষোড়শ সংশোধনী নিয়ে উচ্চ আদালতের কর্মকাণ্ড ষড়যন্ত্র কি না তা ইতিহাসের গবেষণার বিষয় হলেও এই রায় ষড়যন্ত্রকারীদের একটি বড় অস্ত্র হয়ে দাঁড়িয়েছে। ব্যাপারটা আওয়ামী লীগ নেতৃত্ব সঠিকভাবে মোকাবেলা করতে ব্যর্থ হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী এবং আইনমন্ত্রী পরিস্থিতি মোকাবেলায় সঠিক কৌশল নিলেও, অন্যরা ষড়যন্ত্রকে উস্কে দেওয়ার সুযোগ করে দিচ্ছে।

সংবাদ সম্মেলনে তার স্ত্রী লায়লা সিদ্দিকীও উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, হজ নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করায় মন্ত্রিত্ব হারান টাঙ্গাইল-৪ আসন থেকে নির্বাচিত চার বারের এই সংসদ সদস্য। এ্কই সঙ্গে তাকে আওয়ামী লীগ থেকেও বহিষ্কার করা হয়।

২০১৪ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর লতিফ সিদ্দিকী নিউ ইয়র্কে টাঙ্গাইল সমিতির এক অনুষ্ঠানে হজ নিয়ে বিরূপ কথা বলেন। নিজেকে ‘অহংকারী’ উল্লেখ করেই লতিফ সিদ্দিকী বলেছিলেন, “আমি কিন্তু হজ আর তাবলিগ জামাত দুটোর ঘোরতর বিরোধী। আমি জামায়াতে ইসলামীর যতটা বিরোধী, তার চেয়ে বেশি হজ আর তাবলিগের বিরোধী।

আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ নেতা লতিফ ২০০৯ সালে শেখ হাসিনার সরকারে বস্ত্র ও পাটমন্ত্রীর দায়িত্ব নিয়ে পাঁচ বছর তা পালন করেন। এবার পেয়েছিলেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব। কিন্তু এক বছর না পেরোতেই তাকে বিদায় নিতে হয়।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

উপরে