আপডেট : ২০ মে, ২০১৭ ১১:৪৩

তল্লাশিতে কিছুই মেলেনি

অনলাইন ডেস্ক
তল্লাশিতে কিছুই মেলেনি

বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয়ে ৩ ঘণ্টা তল্লাশি চালিয়ে কোনো কিছুই পায়নি পুলিশ। আজ সকাল সাড়ে ৬টা থেকে প্রায় ৩ ঘণ্টা ওই কার্যালয়ের ভেতরে তল্লাশি চালায় গুলশান থানার একটি দল। এসময় তিন তলায় চারটি তালা ভাঙে পুলিশ। এছাড়া শুরুতেই কার্যালয়ের ভেতরে বাইরে বিভিন্ন সিসি ক্যামেরা ঘুরিয়ে রেখে তারা এই তল্লাশি চালায়।  

আদালতের একটি সার্চ ওয়ারেন্টের ভিত্তিতে খালেদা জিয়ার কার্যালয়ে রাষ্ট্রবিরোধী কোনোও কর্মকাণ্ড চলছে কি না, কিংবা কোনো ডকুমেন্ট রয়েছে কি না তা দেখতে এই তল্লাশি চালানো হয় বলে জানান গুলশান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু বক্কর সিদ্দিক। তল্লাশি শেষে সাংবাদিকদের তিনি জানান, তেমন কিছুই পাওয়া যায়নি।

এদিকে, তল্লাশির এই ঘটনা দলের চেয়ারপার্সনকে হয়রাণি ও মানসিকভাবে বিপর্যস্ত করার লক্ষেই করা হয়েছে বলে মনে করছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহল কবির রিজভী আহমেদ। তল্লাশি শেষে গুলশান কার্যালয়ের সামনে সাংবাদিকদের কাছে দেওয়া প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন, চেয়ারপার্স খালেদা জিয়াকে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত করতে চায় সরকার। আর সে কারণে তাকে নানাভাবে হয়রাণি করা হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, অজ্ঞাতনামা ব্যক্তির অভিযোগের ভিত্তিতে পুলিশের এমন তল্লাশি একটি ন্যাক্কারজনক ঘটনা। বিএনপিকে দুর্বল করার জন্য এটি একটি ষড়যন্ত্র।  

এদিকে তল্লাশির খবর পেয়ে কার্যালয়ে ছুটে আসেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুল আওয়াল মিন্টো, যুগ্ম মহাসচিব হাবিবুন নবী খান সোহেলসহ নেতাকর্মীরা। এসময় তারা বিক্ষোভে ফেটে পড়েন এবং কার্যালয়ের সামনে বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/বুলা

উপরে