আপডেট : ১০ মার্চ, ২০১৬ ১৮:১২

সন্ত্রাসবিরোধী মামলায় বিএনপির ২৬ নেতৃবৃন্দের অব্যাহতি

বিডিটাইমস ডেস্ক
সন্ত্রাসবিরোধী মামলায় বিএনপির ২৬ নেতৃবৃন্দের অব্যাহতি

রমান থানায় দায়ের করা সন্ত্রাসবিরোধী আইনের মামলায় চার্জশীট গ্রহণ করে মির্জা ফখরুল, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়সহ ২৬ জনকে অব্যাহতি দিয়েছেন আদালত এবং ৬ জনের বিরুদ্ধে দেয়া চার্জশীটটি গ্রহণ করেছেন।

আজ বৃহস্পতিবার ঢাকার মহানগর দায়রা জজ আদালতের বিচার মো: কামরুল হোসেন মোল্লা চার্জশীটটি গ্রহণ করে ২৬ জনকে অব্যাহতি দেন।

২০১৫ সালে ২৯ শে এপ্রিল মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস.আই বাহাউদ্দিন ফারুক তদন্ত করে ঢাকার সি.এম.এম আদালতে ৬ জনকে অর্ন্তভুক্ত করে চার্জশীট দেয় এবং ঐ চার্জশীটে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, মির্জা আব্বাস, আমান উল্লাহ আমান, বরকত উল্লাহ বুলু, সাইফুল আলম নিরব, আব্দুস সালাম, সালাউদ্দিন আহম্মেদ, ওবাইদুল হক, মহিদুল ইসলাম হিরু, জামায়াত নেতা ড. শফিকুল ইসলাম মাসুদ ও ড. সফিকুর রহমানসহ ২৬ জনকে অব্যাহতি দেওয়ার জন্য আবেদন করা হয়।

অপরদিকে রবিউল ইসলাম নয়ন, যোবায়ের হোসেনসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে চার্জশীট দেন। এরপর মামলাটি বিচার নিষ্পত্তির জন্য ঢাকার মহানগর দায়রা জজ আদালতে পাঠানো হয়।

মামলার বিবরণে প্রকাশ, ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির জাতীয় নির্বাচন বানচাল করার জন্য ঘোষিত হরতাল চলাকালে আসামিরা ৩ জানুয়ারি রমনা থানাধীন পরিবাগ মোড়ে যাত্রীবাহী বাসে বোমা মারলে বাসে আগুন ধরে যায়। ফলে বাসযাত্রী শাহীনা আক্তার ও ফরিদ মিয়া মারা যান। বাসের ড্রাইভার বাবুল মিয়া গুরুতর আহত হন। এ ঘটনায় রমনা থানার উপ-পরিদর্শক আশরাফুল ইসলাম বাদি হয়ে মামলাটি করেন।

২০১৫ সালের ২৯ এপ্রিল ডিবি পুলিশের উপ-পরিদর্শক বাহাউদ্দিন ফারুকী বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, মির্জা আব্বাসসহ ২৬ জনকে অব্যাহতি আবেদন জানিয়ে রবিউল ইসলাম নয়ন, যোবায়ের হোসেনসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে চার্জশীট দাখিল করেন। ২০১৫ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর সন্ত্রাসবিরোধী আইনের অনুমতি প্রদান করেন মন্ত্রণালয়।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জেডএম

 

উপরে