আপডেট : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১১:২৭

৭১৯টি ইউপি মনোনয়নে জোট পেল মাত্র একটি!

বিডিটাইমস ডেস্ক
৭১৯টি ইউপি মনোনয়নে জোট পেল মাত্র একটি!

ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে জোটগতভাবে অংশ নেওয়ার ঘোষণা দেওয়া হলেও প্রথম ধাপে একটি ছাড়া সব কটিতেই প্রার্থী দেওয়া হয়েছে বিএনপি থেকে। ৭১৯টি ইউপিতে প্রার্থী চূড়ান্ত করে প্রত্যয়নপত্র দেওয়া হয়েছে। এসবের মধ্যে একটি দেওয়া হয়েছে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের শরিক দল লেবার পার্টিকে। এতে নাখোশ হয়েছেন দলটির নেতারা। এ ছাড়া জোটের দ্বিতীয় বৃহত্তম শরিক দল জামায়াতে ইসলামী প্রার্থীর কোনো তালিকা না দেওয়ায় তাদের কোনো ছাড় দিচ্ছে না বিএনপি। জোটের আরেক শরিক দল জাগপাকে দ্বিতীয় ধাপে একটি স্থানে ছাড় দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন বিএনপির দায়িত্বশীল এক নেতা।

চেয়ারম্যান পদে প্রথমবারের মতো দলীয়ভাবে ইউপি নির্বাচন শুরু হচ্ছে আগামী ২২ মার্চ। ওই দিন প্রথম ধাপে ৭৩৯টি ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন হবে। এ নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময় শেষ হয়েছে ২২ ফেব্রুয়ারি সোমবার। এদিকে প্রথম ধাপে ১৯টি ইউপিতে প্রার্থীর নাম  কৌশলগত কারণে প্রকাশ করেনি বিএনপি।

বিএনপির সহপ্রচার সম্পাদক এমরান সালেহ প্রিন্স জানান, এরই মধ্যে ৭১৯টি ইউপিতে প্রার্থী চূড়ান্ত করে তাঁদের হাতে প্রত্যয়নপত্র দেওয়া হয়েছে। যেসব ইউপিতে প্রার্থীর নাম প্রকাশ করা হয়নি সেগুলোর মধ্যে আছে খুলনার পাইকগাছা ও দাকোপ, নোয়াখালীর হাতিয়ার দুটি ইউনিয়ন, বাগেরহাটের মংলা, চিতলমারী, কচুয়া, মোল্লাহাট, সদর ইউনিয়ন ও সাতক্ষীরার কালীগঞ্জ।

আটটি ইউনিয়নের নাম প্রকাশ না করে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘আড়াই বছর ধরে এসব এলাকার দলীয় নেতাকর্মীরা শুধু বাড়িছাড়া নয়, এলাকায় তারা ঢুকতে পারছে না। তাদের বাড়িঘর লুটপাট করা হয়েছে। এমনকি তাদের সন্তানরাও স্কুল-কলেজে যেতে পারছে না। এ অবস্থায় আমরা এসব স্থানে প্রার্থী চূড়ান্ত করলেও তা প্রকাশ করছি না। কৌশলে অংশ নেওয়া হবে।’

গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে গত শুক্রবার জোটের মহাসচিবদের বৈঠক হয়। জামায়াত ও এলডিপি তাতে অনুপস্থিত ছিল। বৈঠক শেষ সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর জানিয়েছিলেন, সমঝোতার ভিত্তিতে শরিকদের সম্পৃক্ত করে এই নির্বাচনে অংশ নেবে বিএনপি।

এদিকে গতকাল শেষ দিন পর্যন্ত কোনো প্রার্থীর তালিকা বিএনপির কাছে জমা দেয়নি জামায়াত। ফলে প্রথম ধাপে কোনো ইউপিতেই জামায়াতকে ছাড় দেয়নি বিএনপি। এ বিষয়ে প্রিন্স বলেন, ‘জামায়াত আমাদের কাছে কোনো তালিকা দেয়নি। তাই ছাড় দেওয়ার প্রশ্নই আসে না।’

তবে এ প্রক্রিয়ার সঙ্গে যুক্ত বিএনপির আরেক নেতা জানান, ১০০ ইউপিতে জামায়াতকে ছাড় দিতে বিএনপির কাছে দাবি জানিয়েছিল দলটি। কিন্তু বিএনপি এতে সায় দেয়নি। বিএনপির পক্ষ থেকে পিরোজপুরের জিয়ানগরের বালিপাড়া, বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জসহ চারটি স্থানে জামায়াতকে প্রার্থী দিতে বলা হয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে বিএনপির কাছে প্রার্থীর তালিকাই জমা দেয়নি জামায়াত।

জানা গেছে, লেবার পার্টিকে পিরোজপুরের ভাণ্ডারিয়ার ৬ নম্বর গৌরীপুর ইউনিয়নে ছাড় দিয়েছে বিএনপি। সেখানে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে লড়বেন লেবার পার্টির প্রার্থী। যদিও বিএনপির কাছে তিনটি ইউপি চেয়েছিলেন লেবার পার্টির চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান ইরান। মাত্র একটি দেওয়ায় তিনি নাখোশ হয়েছেন বলে জানিয়েছেন।

উপরে