আপডেট : ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১০:৪৫

একক প্রার্থী বাছাই নিয়ে কঠিন পরিস্থিতিতে তৃণমূল আওয়ামী লীগ

অনলাইন ডেস্ক
একক প্রার্থী বাছাই নিয়ে কঠিন পরিস্থিতিতে তৃণমূল আওয়ামী লীগ

আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের জন্য ১৫ই ফেব্রুয়ারির মধ্যে তৃণমূল নেতাদের মতামতের ভিত্তিতে একক প্রার্থীর নাম কেন্দ্রে পাঠানোর নির্দেশনা দিয়েছিল আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার নির্বাচন মনোনয়ন বোর্ড। তবে কেন্দ্রের নির্দেশনার পর প্রার্থী বাছাই করতে গিয়ে বেকায়দায় পড়েছে আওয়ামী লীগের তৃণমূল। ঘাম ঝরছে দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতাদের।

দেশের বেশকিছু জেলা, উপজেলা, ইউনিয়ন পর্যায়ের নেতারা হতাশ কণ্ঠে জানান, গতকাল রাত পর্যন্ত তারা এ বিষয়ে কোনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে পারেননি। যোগ্য ও একক প্রার্থী বাছাই করতে গিয়ে কঠিন পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়েছেন তারা।

নেতারা বলছেন, প্রতিটি ইউনিয়নে একাধিক প্রার্থী রয়েছে, একই সঙ্গে একক প্রার্থী নির্ধারণের জন্য কেন্দ্র থেকে ঘোষিত নির্ধারিত সময় খুব বেশি নয়। আবার প্রার্থীর দীর্ঘ তালিকা যাচাই বাছাই করে কাকে রেখে কাকে মনোনয়ন দেয়া হবে এ নিয়ে দ্বিধা-দ্বন্দ্বে তারা।

উদ্ভূত পরিস্থিতিতে বিভিন্ন জেলার তৃণমূল নেতারা একাধিক প্রার্থীর নাম কেন্দ্রে পাঠিয়ে শেষ পর্যন্ত কেন্দ্রের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় থাকবেন বলে জানিয়েছেন।

এদিকে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে তৃণমূল থেকে প্রার্থীদের নাম পাঠাতে ব্যর্থ হলে সময় আরও বাড়ানো হবে কিনা-এমন প্রশ্নে স্পষ্ট কিছু বলেননি সংশ্লিষ্ট বিষয়ে সরকারি দলের দায়িত্বশীল নেতারা। তাদের মতে এ বিষয়ে একটি নির্ধারিত সময় বেঁধে দেয়া হয়েছে। এই সময়ের মধ্যেই তৃণমূল একক প্রার্থীর নাম কেন্দ্রে পাঠাতে পারবে বলে তাদের বিশ্বাস।

আওয়ামী লীগের একাধিক দায়িত্বশীল নেতা ও মার্চের  শেষদিকে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে এমন কিছু জেলা, উপজেলার শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে আলাপকালে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

আগামি ২২শে মার্চ দেশের বিভিন্ন জেলার ৭৫২টি ইউনিয়ন পরিষদে প্রথমবারের মতো দলীয় প্রতীক ও পরিচয়ে চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

আওয়ামী লীগের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ সভাপতি, সাধারণ সম্পাদকদের সমন্বয়ে গঠিত তৃণমূল মনোনয়ন বোর্ড সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নে একক প্রার্থী বাছাই করে দলীয় প্যাডে প্রার্থীর নাম সংযুক্ত করে কেন্দ্রে পাঠাবেন। দলের কেন্দ্রীয় স্থানীয় সরকার নির্বাচন মনোনয়ন বোর্ড প্রার্থীর বিস্তারিত বিবরণ যাচাই বাছাই করে প্রার্থী চূড়ান্ত করবেন।

গত ৮ই ফেব্রুয়ারি রাজধানীর ধানমন্ডিস্থ আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ তৃণমূলের মতামতের ভিত্তিতে একক প্রার্থীর নাম ১৫ই ফেব্রুয়ারির মধ্যে ধানমন্ডিস্থ কার্যালয়ে পাঠানোর জন্য সারা দেশের জেলা-উপজেলা পর্যায়ের নেতাদের নির্দেশ দেন।

তবে, দলের শীর্ষ নেতাদের এমন নির্দেশনার বাস্তবায়ন গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত খুব একটা ফলপ্রসূ হয়নি। এক্ষেত্রে প্রতিটি ইউনিয়নে প্রার্থীর আধিক্য, স্থানীয় মন্ত্রী, এমপি ও কেন্দ্রীয় নেতাদের প্রভাব নাম পাঠানোর জন্য সংক্ষিপ্ত সময়কে দায়ী করছেন জেলা, উপজেলা, ইউনিয়ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ। এদিকে সারা দেশের তৃণমূল থেকে গতকাল রাত পর্যন্ত কতজন প্রার্থীর নাম ধানমন্ডিস্থ আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এসেছে তা জানাতে পারেননি সংশ্লিষ্টরা।
তৃণমূল থেকে আজকের মধ্যে একক প্রার্থীর নাম কেন্দ্রে পাঠাতে ব্যর্থ হলে সময় আরও বাড়ানো হবে কিনা? এমন প্রশ্নে আওয়ামী লীগের একজন দায়িত্বশীল নেতা বলেন, প্রার্থীর নাম কেন্দ্রে পাঠানোর জন্য আমরা একটি ‘টাইম ফ্রেম’ বেঁধে দিয়েছি। এর মধ্যেই তা পাঠাতে হবে।

রবিবার (১৪ফেব্রুয়ারি)দলটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম বলেন, এখনও যেহেতু সময় আছে তাই আশা করছি তৃণমূল একক প্রার্থী নির্ধারণ করে কেন্দ্রে পাঠাতে পারবে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

উপরে