আপডেট : ২৭ মে, ২০১৯ ২২:৫৫

গাজীপুরের আপন তিন ভাই কাতারের তিন মসজিদের ইমাম!

অনলাইন ডেস্ক
গাজীপুরের আপন তিন ভাই কাতারের তিন মসজিদের ইমাম!

রমজান কোরআন নাজিলের মাস।পবিত্র এই কোরআন প্রিয় নবীজী হজরত মুহাম্মদ (সা.) এর ওপর নাজিল করা হয়েছে রমজান মাসে। কোরআনুল কারিমে ইরশাদ হয়েছে, ‘রমজন মাস, যাতে কোরআন নাজিল করা হয়েছে যা মানুষের জন্য হিদায়াত স্বরূপ এবং হিদায়াতের সুস্পষ্ট নিদর্শনাবলি ও সত্য-মিথ্যার পার্থক্যকারীরূপে।’ (সূরা বাকারা, আয়াত : ১৮৫)।

সম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশকে বিশ্ব দরবারে নতুন করে পরিচয় করে দিচ্ছে কোরআনের কল্যানে।বিভিন্ন দেশে আর্ন্তজাতিক কোরআন প্রতিযোগীতায় বাংলাদেশের অংশগ্রহন এবং বিজয় অর্জন এক নতুন বাংলাদেশকে চিনছে বিশ্ব।পিছিয়ে নেই প্রবাসীরাও বিশ্বের বিভিন্ন দেশে মসজিদের ইমামতি করছেন তারা।তাদের সু-মধুর কোরআন তেলাওয়াতে মুগ্ধ হচ্ছেন ভিন দেশের মানুষেরা।

আজ পাঠকদের জানাবো কোরআনের পরিচয়ে পরিচিত তিন ভাইয়ের কথা।গাজীপুর মহানগর ২২ নং ওয়ার্ড নান্দুয়াইনের জনাব মাওলানা নুরুল ইসলামের গর্বিত তিন সন্তান মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কাতারের ভিন্ন ভিন্ন তিন মসজিদে ইমামতি করছেন।

হাফেজ মাওলানা ইসহাক নুর

উনি কাতারে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের একটি অন্যতম মসজিদের ইমাম।মসজিদের পাশে অনেক শায়খদের বাসা।সব শায়খরা তাকে পছন্দ করেন।দীর্ঘ পনের বছর যাবত আছেন এই মসজিদে।প্রতি রমজানে কাতারী শেখদের সাথে পবিত্র মক্কায় যেতেনে ওমরা পালনের জন্য।মাওলানা ইসহাক নুর সাহেব সু-দুর প্রবাস থেকেও মদীনাতুনর ইসলামিয়া ক্যাডেট মাদরাসা নামে একটি প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করেন। ওনি একজন ভাল বক্তা এবং একসময় কাতারের টেলিভিশনে কোরআন তেলাওয়াত করতেন।

হাফেজ মাওলানা ইউসুফ নুর

কাতারে একটি প্রাইভেট কোম্পানির মসজিদের ইমাম হিসেবে আছেন এগারো বছর যাবত। কাতার মিসর সুদান তিউনিসিয়া,ইন্ডিয়া বাংলাদেশ সহ বিভিন্ন দেশের মানুষ তার মসজিদের নিয়মিত মুসল্লী। সপ্তাহে দুইদিন তাকে উর্দুতে বয়ান করতে হয়।সব দেশের মানুষের ভালবাসায় মুগ্ধ হাফেজ ইউসুফ নুর।

হাফেজ মাওলানা ইলিয়াছ হাসান

ফ্রি ভিসায় এসেছিলেন কাতারে।কিছুদিন পুর্বে কাতারের এক কোরআন প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহন করে তৃতীয় স্থান অর্জন করে সত্তর হাজার কাতারি রিয়াল পুরুস্কার প্রাপ্ত হোন।গর্বিত এই বাংলাদেশী প্রবাসী তার মেধার স্বাক্ষর রেখেছেন এই প্রবাস জীবনে। এখন কাতার ধর্মমন্ত্রনালয়ের অধীনে একটি মসজিদের ইমাম তিনি।

হাফেজ মাওলানা ইসহাক নুর, হাফেজ মাওলানা ইউসুফ নুর ও হাফেজ মাওলানা ইলিয়াছ হাসানের গবির্ত পিতা মাওলানা নুরুল ইসলামের কাছে তার অনুভুতি জানতে চেয়েছিলাম আপনার তিন সন্তান আরবের তিনটি মসজিদের ইমাম আপনার কাছে কেমন লাগে?টেলিফোনের অপর প্রান্ত থেকে ভাঙ্গা ভাঙ্গা গলায় উচ্ছারিত হচ্ছিল মহান রব্বের প্রশংসা আলহামদুলিল্লাহ্।তিনি তার নিজের এবং তার সন্তানদের জন্য দোয়া চেয়েছেন।দেশ জাতি ও ইসলামের কল্যাণে যেন তার সন্তানেরা কাজ করতে পারেন।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম  

উপরে