আপডেট : ৩ মার্চ, ২০১৬ ২২:৫৩
গ্র্যাজুয়েট সনদ পেয়েছেন একশ’র বেশি বাংলাদেশি শিক্ষার্থী

মালয়েশিয়ার লিংকন ইউনিভার্সিটি কলেজের সমাবর্তন

বিডিটাইমস ডেস্ক
মালয়েশিয়ার লিংকন ইউনিভার্সিটি কলেজের সমাবর্তন

শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের জনসমুদ্র পরিণত হয়েছিলো পুরো ক্যাম্পাস। ৪৭৮ জন শিক্ষার্থী তাদের স্নাতক সম্পন্ন করলো। গর্বিত অভিভাবক বন্ধুবান্ধব এবং আত্মীয়স্বজনরা দেখলো এমন এক সমাবর্তন অনুষ্ঠান যেখানে প্রচুর সংখ্যক উপস্থিতি ছিলো। প্রায় ২০ টি দেশের বিশেষ করে বাংলাদেশ, মায়ানমার, শ্রীলংকা, ভারত,  নেপাল, কম্বোডিয়া, পাকিস্থান, ইয়েমেনসহ অন্যান্য রাষ্ট্র থেকে পড়তে আসা শিক্ষার্থীরা সমাবর্তনে অংশ নেয়। এদের মধ্যে বাংলাদেশের একশ’র বেশি শিক্ষার্থী কৃতিত্বের সঙ্গে উত্তীর্ণ হয়ে সমাবর্তনে অংশ নেয়। নেটওয়ার্ক টেকনোলজি এন্ড সাইবার সিকিউরিটির শিক্ষার্থী বাংলাদেশি বি এম নুরুল আমিন ‘ডীন অ্যাওয়ার্ড’ পেয়েছেন।

৩ মার্চ বৃহস্পতিবার মালয়েশিয়ার মায়াং প্লাজার গ্রেস কনভোকেশন হলে লিংকন ইউনিভার্সিটি কলেজের সমাবর্তন অনুষ্ঠিত হয়। লিংকন ইউনিভার্সিটি কলেজের প্রো চ্যান্সেলর প্রফেসর দাতু ড. বিবি ফ্লোরিনা আব্দুল্লাহ সমাবর্তন অনুষ্ঠানের উদ্ভোধন ঘোষনা করেন। এরপর প্রতিষ্ঠানটির উপাচার্য ড. অমিয়া ভৌমিক উপস্থিত সবাইকে স্বাগত জানান এবং অতিথিদেরকে সবার সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দেন। অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইয়েমেনের সাবেক উচ্চ শিক্ষা, বিজ্ঞান ও গবেষনা মন্ত্রী প্রফেসর ড. সালেহ আলী বাসুরাহ এবং লিবিয়া অ্যাম্বাসির একাডেমিক এটাচ কাউন্সিলর ড. সামির এএস কার্শমান।

বক্তব্য দিচ্ছেন প্রফেসর দাতু ড. বিবি ফ্লোরিনা আব্দুল্লাহ

বক্তব্য দিচ্ছেন ড. অমিয়া ভৌমিক

স্নাতক ডিগ্রীধারী সবাইকে শুভেচ্ছা জানিয়ে ড. অমিয়া বলেন, ‘নিজেদের আগ্রহ, উদ্দীপণা এবং জানার অদম্য ইচ্ছা শক্তির কারণে শিক্ষার্থীরা এ পর্যন্ত আসতে পেরেছে। এই শিক্ষা তাদের জীবনে সফলতা বয়ে আনবে।' এসময় তিনি একটি ‘প্রফেটিক মেডিসিন' গবেষনা কেন্দ্র খোলার ঘোষনা দেন। এমন একটি অনুষ্ঠানে আসতে পেরে নিজের আনন্দ প্রকাশ করে ড. সালেহ আলী জানান, ‘ইয়েমেনের যে সকল শিক্ষার্থী লিংকন ইউনিভার্সিটি থেকে স্নাতক ডিগ্রী নেয়ে যাচ্ছে তারা নতুন একটি ইয়েমেন গড়ে তুলতে দেশের তরুণ শিক্ষার্থীদের জন্য উদাহরণ হয়ে থাকবে।' গ্র্যাজুয়েট শিক্ষার্থীদের শুভেচ্ছা জানিয়ে ড. সামির বলেন ‘তোমাদের অভিভাবক এবং শিক্ষকদের প্রতি তোমরা সবসময় কৃতজ্ঞ থাকবে।' যুক্তরাজ্যের হাডার্সফিল্ড ইউনিভার্সিটির সহযোগিতায় প্রথমে লিংকন ইউনিভার্সিটি কলেজের নার্সিং গ্র্যাজুয়েটদের সনদ দেয়া হয়। একইভাবে পরবর্তী গ্র্যাজুয়েটদেরও সনদ দেয়া হয়।

‘ডীন অ্যাওয়ার্ড’ নিচ্ছে বাংলাদেশি শিক্ষার্থী বি এম নুরুল আমিন

ফার্মেসি অনুষদের ড. সতীশ বাবু নটরাজন কে তাঁর গবেষনাকর্মের জন্য ‘ভাইস চ্যান্সেলর রিসার্চ অ্যাওয়াডর্' প্রদান করা হয়। একাডেমিক দক্ষতার জন্য চ্যাং লাই ই, চুং সু চিন, লি মুই ইয়াং, স্কলাসটিকা লি এবং শর্মিলি শিবাগুরুনাথকে ‘চ্যান্সেলর অ্যাওয়ার্ড' প্রদান করা হয়। এছাড়াও ৩৪ জন গ্র্যাজুয়েট শিক্ষার্থীকে ‘ডীন অ্যাওয়ার্ড' দেওয়া হয়। বিবি ফ্লোরিনা আব্দুল্লাহ বলেন, ‘লিংকন ইউনিভার্সিটি কলেজ শুধু শিক্ষার্থীদের পড়াশোনাই নয় তাদের মানবিক বৈশষ্টি উন্নয়নেও নজর রাখে। আমরা বৃহত্ এবং স্বাধীন শিক্ষার পাশাপাশি জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক সচেতনতা ও নৈতিক মূল্যবোধের শিক্ষা দেই।'

লিংকনের এশিয়া বিষয়ক পরিচালক এসএম জহিরুল ইসলাম সবুজের সঙ্গে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা

সকল কার্যক্রম শেষে আশা এবং আনন্দের রশ্মি নিয়ে সমাবর্তন অনুষ্ঠান সমাপ্ত ঘোষণা করেন ফ্লোরিনা আব্দুল্লাহ।

সমাবর্তন অনুষ্ঠানের একটি আনন্দঘন মুহুর্তে লিংকনের এশিয়া বিষয়ক পরিচালক এসএম জহিরুল ইসলাম সবুজ, আব্দুল মোমেন ও মনোজিৎ দেবনাথসহ আরো অনেকে।

উপরে