আপডেট : ১৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৪:২০

বাংলাদেশী নারী শ্রমিক নিয়োগ; মিশ্র প্রতিক্রিয়া মালয়েশিয়ায়

অনলাইন ডেস্ক
বাংলাদেশী নারী শ্রমিক নিয়োগ; মিশ্র প্রতিক্রিয়া মালয়েশিয়ায়

বাংলাদেশ থেকে নারী শ্রমিক নেওয়ার ফলে মালয়েশিয়ার সমাজে কি ধরণের প্রভাব পড়বে তা নিয়ে নানা গুঞ্জন সৃষ্টি হয়েছে দেশটিতে। বাংলাদেশী নারীদের নিয়ে ঠিক কোন খাতে কাজ করার অনুমতি দেয়া হবে সেটা নিয়ে ধোঁয়াশা রয়েই গেছে। মালয়েশিয়ার ইংরেজি দৈনিক দ্য স্টার পত্রিকার এক প্রতিবেদনে এসব কথা বলা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, নারী সহ ১৫ লাখ বাংলাদেশী শ্রমিক নেয়ার বিষয়ে মালয়েশিয়ার সঙ্গে সমঝোতা স্বারক স্বাক্ষরের কথা রয়েছে বাংলাদেশের। তারই প্রেক্ষিতে এমন গুঞ্জন সৃষ্টি হয়েছে। ঢাকার নারীরা মালয়েশিয়া গেলে তাদেরকে নিয়ে উদ্বেগের কিছু নেই। তারা কারো সংসার ভাঙার কারণ হবেন না বলেই আশা করা যায়। তবে কয়েক বছর আগেও বাংলাদেশী পুরুষরা মালয়েশিয়ার নারীদের প্রলুব্ধ করতেন।

বাংলাদেশী নারীরা মালয়েশিয়ায় গেলে কি উল্টো কোন প্রতিক্রিয়া হবে! এ নিয়ে অনলাইন সামাজিক মাধ্যমগুলোতে নানা বিতর্ক হচ্ছে। ব্লাক হক ছদ্মনামে এক ব্যক্তি লিখেছেন, বিদেশীদের প্রতি, বিশেষ করে যারা আসছেন, তাদের প্রতি মালয়েশিয়ানরা যদি আকৃষ্ট হয় তাহলে বিস্ময়ের কিছু থাকবে না। সমস্যাটা হবে তখনই যখন বিদেশীরা মালয়েশিয়াকে বিদায় জানাবেন। অন্যদিকে আরেকজন লিখেছেন, বিদেশী শ্রমিকদের এক্ষেত্রে দায়ী করা উচিত হবে না। তারা সাধারণ মানুষ। এখানে আসছেন কাজ করতে এবং জীবনে প্রতিষ্ঠিত হতে। এর পাশাপাশি তারা সাধারণত কঠোর পরিশ্রমী। তাই তারা পারিবারিক দায়িত্ব ভালভাবে পালন করেন।

ওয়ানিটা এমসিএ’র চেয়ারম্যান হেং সেই কি মনে করেন, চীনারা মালয়েশিয়ায় কাজ করতে এলে যে প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয় বাংলাদেশী নারীরা কাজ করতে এলে তেমন প্রতিক্রিয়া হবে না। তিনি বলেন, আমি যতদূর জানি, বাংলাদেশী নারীরা বেশির ভাগই কাজ করবেন রেস্তোরাঁয়। অথবা তাদেরকে গৃহকর্মে নিয়োগ করা হতে পারে। তবে তারা পরিবার ভাঙার কারণ হবেন বলে মনে করি না।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

উপরে