আপডেট : ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ২০:৩৮

প্রশ্ন কিনতে অভিভাবকদের তহবিল গঠন!

অনলাইন ডেস্ক
প্রশ্ন কিনতে অভিভাবকদের তহবিল গঠন!

প্রশ্ন ফাঁস আতঙ্কে আছে দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। এরইমধ্য চলতি বছরের এসএসসি পরীক্ষার প্রায় সবগুলো প্রশ্ন ফাঁস হয়েছে। শুধু তাই নয় ফাঁস হওয়া সে সব প্রশ্ন কিনতে পরীক্ষার্থীদের অভিভাবকেরা চাঁদা দিয়ে তৈরি করেছেন তহবিল। সেই তহবিল থেকে প্রতি পরীক্ষার আগেই প্রশ্ন সংগ্রহ করা হয়। আর প্রশ্নগুলো চটজলদি সমাধানের জন্য রয়েছে এক দল শিক্ষক। খোদ রাজধানীতেই এমন ঘটনা ঘটছে।

সোমবার এ তথ্য দিয়েছেন র‌্যাব-৩-এর সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। তারা জানান, ফাঁস হওয়া প্রশ্ন বেচার সঙ্গে যুক্ত পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তার থাকা অবস্থায় তাদের একজনের মোবাইলে জীববিজ্ঞানের ফাঁস হওয়া প্রশ্নপত্র চলে আসে।

সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব জানায়, গ্রেপ্তার পাঁচজনের মধ্যে চারজনই শিক্ষক। তারা হলেন- উত্তরখানের কাচকুড়ার ক্যামব্রিজ হাইস্কুল নামের একটি বেসরকারি স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক তানভীর হোসেন (২৯) ও সজীব মিয়া (২৬)। এছাড়া সৃজনশীল নামের একটি কোচিং সেন্টারের শিক্ষক মো. ইব্রাহিম (২১) ও এনামুল হক (২৭)। গ্রেপ্তার অপরজন হলেন হাসানুর রহমান (২৯)। তিনি উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতকের ছাত্র।

গ্রেপ্তার অভিযানে যুক্ত র‌্যাব-৩-এর কর্মকর্তারা জানান, ক্যামব্রিজ নামের উত্তরখানের সেই স্কুলটিতে এসএসসি পর্যন্ত শিক্ষার্থী পড়ানো হয়। কিন্তু স্কুলটি এখনো এমপিওভুক্ত হয়নি। তারা মূলত অন্য স্কুল থেকে শিক্ষার্থীদের এসএসসি পরীক্ষায় নিবন্ধন করায়।

পরীক্ষার আগে পরীক্ষাকেন্দ্রের কাছাকাছি এক বা একাধিক বাড়ি ভাড়া নেন ওই স্কুল ও কোচিং সেন্টারের শিক্ষকেরা। তারপর পরীক্ষার আগে ফাঁস হওয়া প্রশ্ন হাতে আসার পর সেই বাড়িগুলোতে প্রশ্নের সমাধান বের করেন তারা। এরপর নিজেদের শিক্ষার্থীদের এমসিকিউ অংশের উত্তরগুলো মুখস্থ করিয়ে পরীক্ষার হলে পাঠান। এ জন্য অভিভাবকদের কাছ থেকে আগেই চাঁদা নিয়ে তহবিল সংগ্রহ করে রাখা হয়।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

উপরে